Home Blog Page 5

‘ওয়েল ডান মেজর ডালিম’- কথাটি কে বলেছিলেন?: কাদের

0

১৫ আগস্ট হত্যাকাণ্ডের নেপথ্যে কারা ছিলো তা জাতির সামনে উন্মোচনের সময় এসেছে। একজন জেনারেল মেজর ডালিমের সঙ্গে দেখা হওয়ার পর মন্তব্য করেছিলেন ‘ওয়েল ডান মেজর ডালিম’। তিনি কে? তিনি আর কেউ নন জিয়াউর রহমান। বললেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

সোমবার সকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে বঙ্গবন্ধুর খুনি নূর চৌধুরীকে দেশে ফিরিয়ে আনার দাবিতে স্বাক্ষর সংগ্রহ কর্মসূচিতে এসব কথা বলেন তিনি। এসময় দেয়া বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

কাদের বলেন, এ কথার অর্থ কী? ১৫ আগস্ট হত্যাকাণ্ডের নেপথ্যে এই জিয়াউর রহমান ছিলেন। বঙ্গবন্ধুর খুনিদের নিরাপদে বিদেশে পাঠিয়ে দিয়েছিলেন কে? তিনি জিয়াউর রহমান। এই খুনিদের বিভিন্ন দূতাবাসে চাকরি দিয়েছিলেন কে? জিয়াউর রহমান।

তিনি বলেন, ১৫ আগস্টের খুনিদের বিচার হবে না এই মর্মে ইনডেমনিটি অর্ডিন্যান্স জারি করেছিলেন জিয়াউর রহমান। এই খুনিদের বিচার কাজ বন্ধ করতে পঞ্চম সংশোধনীতে ইনডেমনিটি অর্ডিন্যান্স যুক্ত করেছিলেন কে? এই জিয়াউর রহমান। লাখো শহীদের রক্তে অর্জিত সংবিধানে কেন ইনডেমনিটি অর্ডিন্যান্স যুক্ত করা হয়েছিল? সেই প্রশ্নের জবাব বিএনপি এখনও দেয়নি।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িতদের বিচার করা হয়েছে। এখনও ৬ জন খুনি বিদেশে পালিয়ে রয়েছে। এর মধ্যে রাশেদ চৌধুরী পালিয়ে আছে যুক্তরাষ্ট্রে। রাজনৈতিক আশ্রয়ে সে সেখানে বসবাস করছে। তাকে ফিরিয়ে আনতে ট্রাম্প সরকারের সাথে আলোচনা চলছে। এ বিষয়ে যথেষ্ট অগ্রগতি হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্র সরকারও আমাদের সহযোগিতা করছে। যুক্তরাষ্ট্রের আদালতে বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে একটি মামলা করা হয়েছে।

বিএন‌পি যে দেউ‌লিয়া দল তা আবারও প্রমাণ ক‌রে‌ছে: হাছান

0

বিএনপি নামক দলটি রাজনীতির অঙ্গনে এবং আন্তর্জাতিক অঙ্গনে এত দেউলিয়া দশা যে তাদের কোনো গ্রহণযোগ্যতা নেই। সেটা আবারও প্রমাণ করেছে ব‌লে মন্তব্য ক‌রে‌ছে আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক হাছান মাহমুদ।

সোমবার (১৭ সে‌প্টেম্বর) জাতীয় প্রেসক্লাবে সাম‌নে বঙ্গবন্ধু স্বাধীনতা পরিষদের উদ্যোগে বিএনপির আগুন সন্ত্রাস জঙ্গিবাদ নৈরাজ্যের প্রতিবাদে মানববন্ধন ও সমাবেশে তি‌নি এ মন্তব্য ক‌রেন।

‌তি‌নি ব‌লেন, ‘মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সর্বস্তরের কর্মকর্তার সাথে দেখা করেছেন বিএনপি। অথচ মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ব‌লে‌ছেন- জাতিসংঘের মহাস‌চি‌বের আমন্ত্র‌ণে তারা গি‌য়ে‌ছে। এই মিথ্যাচার ক‌রে তারা আবার প্রমাণ করেছে বিএন‌পি জালিয়াতি ধোঁকাবাজ দল। এরা জনগণকে ধোঁকা দেয়ার জন্য বিভ্রান্ত করার জন্য এ রকম মিথ্যার আশ্রয় নিয়েছে।’

জাতীয় ঐক্যের প্রস‌ঙ্গে তি‌নি ব‌লেন, ‘সে‌দিন জাতীয় ঐক্যের মিছিলে দেখতে পেলাম ৫০ জন হ‌য়ে‌ছে। যারা ১০০ জন মানুষ যোগার করতে পারে না তারা আবার জাতীয় ঐক্য করবে। বাংলাদেশের কিছু রাজনীতিবিদ আছে পচে গেছে। আর কিছু এখন পচনশীল হ‌চ্ছে।’

‌বিএনপি বার বার জালিয়াতির আশ্রয় নিয়েছে। সর্বশেষ জাতিসংঘের সাথে দেখা করতে গেছে এটা নিয়ে মিথ্যাচার করেছে মন্তব্য ক‌রে বিএনপির উ‌দ্দে‌শে তি‌নি ব‌লেন, ‘এত দৌড়ঝাঁপ করে লাভ নেই, নির্বাচনের জন্য প্রস্তুত নেন, আমরা প্রতিযোগিতামূলক নির্বাচন চাই এবং সেই নির্বাচনে তৃতীয় বারের মতো আমরা সরকার গঠন করব।’

দলের নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে আওয়ামী লীগের এই মুখপাত্র বলেন, ‘তোমরা প্রস্তুত হও। ২০১৪ সালের মতো যেন কোনো আগুন-সন্ত্রাস না কর‌তে পা‌রে। তাই এখন থে‌কে সজাক দৃ‌ষ্টি রা‌খো।’

আওয়ামী লীগ নেতা ব্যারিস্টার জাকির আহমেদের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে আরও উপস্থিত ছিলেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সাধারণ সম্পাদক শা‌হে আলম মুরাদ, বলরাম পুদ্দার প্রমুখ।

‘মেডিকেল বোর্ডের বক্তব্য সরকারের চিন্তারই প্রতিফলন’

0

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার অসুস্থতা নিয়ে সরকার গঠিত মেডিকেল বোর্ডের বক্তব্য স্ববিরোধী ও সরকারের চিন্তারই প্রতিফলন বলে দাবি করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী।

তিনি অভিযোগ করে বলেন, ‘আমরা বারবার বলে এসেছি- অবৈধ আওয়ামী সরকার ও সরকার প্রধান সুপরিকল্পিতভাবে বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে চিকিৎসা না দিয়ে তাঁর অসুস্থতা চরম শোচনীয় অবস্থায় উপনীত করার চক্রান্ত চালিয়ে আসছে।’

সোমবার (১৭ সেপ্টেম্বর) নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

রিজভী বলেন, ‘সরকারি দলের অনুগত চিকিৎসকদের দিয়ে গঠিত মেডিকেল বোর্ড কারাগারে ২০ মিনিটে তথাকথিত পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে বিএসএমএমইউ-তেই ভর্তির পরামর্শ দিয়েছেন। অর্থাৎ আমরা পূর্বেই বলেছিলাম-দেশনেত্রীর স্বাস্থ্য নিয়ে সরকার দলের অনুগত বোর্ড সদস্যরা সরকারের পছন্দানুযায়ী পরামর্শ দেবেন-সেটিই প্রমাণিত হলো।’

‘বেগম খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য ঝুঁকিপূর্ণ নয়, কোনো আশঙ্কা নেই’- মেডিকেল বোর্ডের এমন বক্তব্যের কঠোর সমালোচনা করে রিজভী বলেন, ‘দেশনেত্রীর স্বাস্থ্য যদি ঝুঁকিপূর্ণ না হয় তাহলে অন্যের সাহায্য ছাড়া তিনি এপাশ-ওপাশ হতে পারেন না কেন? একথা তো মেডিকেল বোর্ডই স্বীকার করেছে। দেশনেত্রীর অসুস্থতা নিয়ে মেডিকেল বোর্ডের বক্তব্য স্ববিরোধী ও সরকারের চিন্তারই প্রতিফলন।’

রিজভী বলেন, ‘সরকারি মেডিকেল বোর্ডের পরামর্শ একদেশদর্শী ও সার্বজনীন চিকিৎসানীতির পরিপন্থী। একজন রোগীকে তার পছন্দ অনুযায়ী চিকিৎসা দেয়া উচিত, এটি তার মানবাধিকার। সেটি না করে কর্তৃপক্ষ জোর করে নিজেদের পছন্দের চিকিৎসকদের দিয়ে দেশনেত্রীর স্বাস্থ্য পরীক্ষা করানো চরম প্রতিহিংসাপরায়ণ জেদেরই বহিঃপ্রকাশ।’

বেগম খালেদা জিয়াকে চরম স্বাস্থ্যঝুঁকিতে নিয়ে যাওয়ার জন্যই সরকারের ইচ্ছা অনুযায়ী মেডিকেল বোর্ড ‘ম্যানুফ্যাকচারিং প্রতিবেদন’ দিয়েছে, আর সেজন্যই বেগম জিয়ার ব্যক্তিগত চিকিৎসকদেরকে বোর্ডে অন্তর্ভূক্ত করা হয়নি বলেও দাবি করেন রিজভী।

তিনি অভিযোগ করেন, ‘আইনশৃঙ্খলা বাহিনী কর্তৃক ঢাকাসহ সারাদেশ থেকে বিএনপি এবং অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদেরকে গ্রেফতারের পাশাপাশি আটকের পর তা অস্বীকার ও গুম করে দেয়ার ঘটনায় সারাদেশে বিরাজ করছে এক ভয়াল আতঙ্কজনক পরিবেশ। নারায়ণগঞ্জ জেলা জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের সভাপতি মশিউর রহমান রনীকে আটক এবং আইনশৃঙ্খলা বাহিনী কর্তৃক তাকে গ্রেফতারের বিষয়টি স্বীকার না করার ঘটনা বিরোধী নেতাকর্মীদের ওপর বর্তমান অত্যাচারী শাসকগোষ্ঠীর চলমান নিষ্ঠুর কর্মকাণ্ডের ধারাবাহিকতা।’

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা জয়নুল আবদিন ফারুক, কর্নেল (অবঃ) আব্দুল লতিফ, কৃষক দলের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক তকদির হোসেন মো. জসিম, বিএনপির সহ-দফতর সম্পাদক মুনির হোসেন প্রমুখ।

আ.লীগ-বিএনপির কাছ থেকে মানুষ মুক্তি চায়: এরশাদ

0

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেছেন, দেশে এখন মানুষের জীবনের নিরাপত্তা নেই, প্রতিদিন কত মানুষ খুন হচ্ছে, কত মানুষ গুম হচ্ছে এর কোনও হিসেব নেই। যুবকদের চাকরি নেই। মাদকে ছেয়ে গেছে দেশ। আওয়ামী লীগ-বিএনপির কাছ থেকে এ দেশের মানুষ মুক্তি চায়। এই অবস্থার পরিবর্তন চায়। মানুষ জাতীয় পার্টি তথা লাঙলকে আবারও ক্ষমতায় দেখতে চায়।

রোববার দুপুরে সুনামগঞ্জ শহরের সরকারি জুবিলি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে জেলা জাতীয় পার্টির দ্বিবার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমদের বক্তব্য উল্লেখ করে এরশাদ বলেন, আওয়ামী লীগ আবার ক্ষমতায় না এলে আওয়ামী লীগের নাকি এক লাখ লোক মারা যাবে। দেশের মানুষরা জানেন ক্ষমতার পালাবদল হয় মানুষেরা কিছু পায় না। বিএনপি ক্ষমতায় এসে ২০০১ থেকে ২০০৬ পর্যন্ত তারা তাদের নেতাকর্মীদের নামে ৫ হাজার ৮৮৮টি মামলা তুলে নিল। আবারও আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এসে ৬ হাজার মামলা তুলে নিল। একশত ৮০ জন আসামি খালাস পেলো। আমরা পালাবদলের রাজনীতি চাই না, আমরা পরিবর্তন চাই। এই পরিবর্তন একমাত্র দিতে পারে লাঙল।

৯১ সালে সিলেট বিভাগের মানুষজন লাঙলের ৮জন প্রার্থীকে বিপুল ভোটে নির্বাচিত করায় তাদের প্রতি কৃতজ্ঞা প্রকাশ করে তিনি বলেন, আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সিলেট বিভাগে আরও বেশি আসনে লাঙলের মনোনীত প্রার্থীদের বিজয়ী করুন। কারণ মানুষ আওয়ামী লীগ ও বিএনপির কাছ থেকে মুক্তি চায়, পরিবর্তন চায়, মানুষ বাঁচতে চায়।

তিনি আরও বলেন, জাতীয় পার্টির সরকারের আমলে সুনামগঞ্জকে জেলা ঘোষণা করা হয়েছিল। তাই আগামী একাদশ জাতীয় নির্বাচনে সুনামগঞ্জ-৪ আসনে জাতীয় পার্টি মনোনীত প্রার্থী অ্যাডভোকেট পীর ফজলুর রহমান মিসবাহকে বিজয়ী করুন।

সুনামগঞ্জ জেলা জাতীয় পার্টির আহ্বায়ক ও সুনামগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট পীর ফজলুর রহমান মিসবাহর সভাপতিত্বে দ্বিবার্ষিক সম্মেলনে আরও বক্তব্য রাখেন জাতীয় পার্টির মহাসচিব এ বি এম রুহুল আমিন হাওলাদার এমপি, প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী ফিরোজ রশীদ এমপি, যুগ্ম মহাসচিব এহিয়া চৌধুরী এমপি, সুনামগঞ্জ জেলা জাতীয় পার্টির সাবেক সভাপতি ও সাবেক এমপি অ্যাডভোকেট আব্দুল মজিদ মাস্টারসহ জেলা ও উপজেলা জাতীয় পার্টির নেতৃবৃ

‘জাতিসংঘ সফর নিয়ে বিচলিত হয়ে আ.লীগ উল্টাপাল্টা বলছে’

0
মওদুদ আহমেদ

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল জাতিসংঘে যাওয়ায় ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ আতঙ্কিত হয়ে পড়েছে বলে দাবি করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ। এজন্য আওয়ামী লীগ বিচলিত হয়ে উল্টাপাল্টা কথা বলছে বলেও তিনি মন্তব্য করেন।

সোমবার (১৭ সেপ্টেম্বর) জাতীয় প্রেসক্লাবের কনফারেন্স লাউঞ্জে মরহুম নাসির উদ্দিন আহমেদ পিন্টু স্মৃতিসংস‌দের উদ্যোগে এক প্রতিবাদ সভায় তিনি এসব কথা বলেন। বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া, যুবদলের সাধারণ সম্পাদক সুলতান সালাউদ্দিন টুকু, সাংগঠনিক সম্পাদক মামুন হাসান ও ছাত্রদলের সাংগঠনিক সম্পাদক ইসহাক সরকারসহ সকল রাজবন্দীর মুক্তির দাবিতে এই প্রতিবাদ সভার আয়োজন করা হয়।

‘নির্দলীয় নি‌রপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন দিতে হবে’ এই দাবিটি যারা অসাংবিধানিক বলেছে, তারা অবাস্তব কথা বলেছে দাবি করে মওদুদ আহমেদ বলেন, ‘এই কথা সংবিধান সম্মত কিনা এর জবাব জনগণ দিবে এবং নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে আগামী নির্বাচন আদায় করবে।’

বিএনপি এই শীর্ষ নেতা বলেন, ‘নির্বাচনকালীন সরকার বলতে কিছুই নাই, সরকার যদি তা করতে চায় তাহলে সকল দলের মতামতের ভিত্তিতে করতে হবে। আর যদি অবৈধ ভাবে সরকার ক্ষমতায় থাকত চায় তাহলে দেশের জনগণ তা করতে দিবে না।’

তিনি বলেন, ‘জনগণের কল্যাণের জন্য সংবিধান কখনো বাধা হতে পারে না। সংবিধান পরিবর্তন করা যেতে পারে, তবে তা জনগণের কল্যাণের জন্য হতে হবে।’

বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলুর সভাপতিত্বে উপস্থিত আয়োজক কমিটির সাধারণ সম্পাদক নাহিদুল ইসলাম নাহিদের সঞ্চালনায় সভায় উপস্থিত ছিলেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির সহ-সভাপতি মোশারফ হোসেন খোকন, তেজগাঁও থানা সহ-সভাপতি হাফিজুর রহমান কবির, শাহবাগ থানার কৃষকদলের সভাপতি এম. জাহাঙ্গীর আলম প্রমুখ।

দেশে ফিরেছেন মির্জা ফখরুল

0

দেশে ফিরেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

নিউইয়র্ক ও লন্ডনে ৫ দিনের সফর শেষে রবিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যা ৭টায় অ্যামিরেটস এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইটে লন্ডন থেকে শাহজালাল বিমানবন্দরে পৌঁছান তিনি।

বিষয়টি ব্রেকিংনিউজকে নিশ্চিত করেছেন বিএনপির চেয়ারপারসনের প্রেস উইং সদস্য শায়রুল কবির খান।

এর আগে গত ১১ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার রাতে জাতিসংঘ মহাসচিবের আমন্ত্রণে বাংলাদেশের আসন্ন নির্বাচন ও রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা করতে নিউইয়র্ক যান মির্জা ফখরুল।

এ সফরে তিনি জাতিসংঘের রাজনীতিবিষয়ক সহকারী মহাসচিব মেরোস্লাভ জেনকার সাথে গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক করেন। ওয়াশিংটন ডিসিতে মার্কিন পররাষ্ট্র দফতরের সাথেও বৈঠক হয় তার।

এসব বৈঠকে বাংলাদেশ সরকারের নানা অনিয়ম, বিরোধী দলের ওপর দমন-পীড়নের তথ্য-উপাত্ত উপস্থাপন করেন বিএনপি মহাসচিব। আসন্ন নির্বাচন সুষ্ঠু করতে জাতিসংঘ ও ট্রাম্প প্রশাসনেরও করণীয় আছে বলেও সংশ্লিষ্টদের অবহিত করেন তিনি।

এর আগে জাতিসংঘে বৈঠক শেষে গত শুক্রবার বিকেলে লন্ডনের উদ্দেশে নিউইয়র্ক ত্যাগ করেন মির্জা ফখরুল। শনিবার স্থানীয় সময় সকাল সাড়ে ৮টায় নিউইর্য়ক থেকে লন্ডনে পৌঁছান বিএনপি মহাসচিব। সেখানে দলের সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সঙ্গেও তিনি বৈঠক করেন।

সংসদ ভেঙে দেওয়া অসংবিধানিক: ওবায়দুল কাদের

0

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের সংসদ ভেঙে নির্দলীয় সরকার গঠন, বিচারিক ক্ষমতায় দিয়ে সেনা মোতায়েন, নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠনে যুক্তফ্রন্ট ও জাতীয় ঐক্যের দাবিকে অপ্রাসঙ্গিক, অবান্তর, অপ্রয়োজনীয় ও অসাংবিধানিক বলে উল্লেখ করেছেন। তিনি বলেছেন, এখন সংসদ ভেঙে নির্দলীয় সরকার করার তো প্রয়োজন নেই।

রবিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) দুপুরে ইনস্টিটউশন অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স (আইডিইবি) কাউন্সিল হলে সংগঠনটির ৪১তম কাউন্সিল অধিবেশনে তিনি এসব কথা বলেন।

উদাহরণ টেনে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আমাদের প্রতিবেশী দেশগুলোসহ পৃথিবীর অন্যান্য দেশে যেভাবে নির্বাচন হয়, ঠিক সেভাবেই আমাদের দেশেও নির্বাচন হবে। নির্বাচন হবে সংবিধান অনুযায়ী, এর বাইরে যাওয়ার সুযোগ নেই।’

তিনি বলেন, ‘এক-দেড় মাস বাকি আছে। এখন মামাবাড়ির আবদার করলে তো চলবে না। সংসদের শেষ অধিবেশন অক্টোবর মাসের ২০ তারিখের আগেই শেষ হয়ে যাবে। এরপর আর নির্বাচন পর্যন্ত সংসদ বসবে না। এই সংসদের সদস্যদের কোনও ক্ষমতা ও কার্যকারিতা থাকবে না।’

জাতীয় নির্বাচনে সেনা মোতায়েন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘নির্বাচন সেনা মোতায়েন হবে না, এটা আমরা বলবো না। প্রয়োজন হলে সেনা মোতায়েন হবে। যদি সময় এবং পরিস্থিতিতে মোতায়েন করা দরকার হয়, সেই অবস্থায় নির্বাচন কমিশন অনুরোধ করলে, সরকার প্রয়োজনে এবং বাস্তব পরিস্থিতির আলোকে কীভাবে মোতায়েন হবে, সেই সিদ্ধান্ত নেবে।’

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠনের সময় এখন নেই। এখানে তো বিএনপিরও প্রতিনিধি রয়েছে। সবার সঙ্গে আলোচনা করেই রাষ্ট্রপতি এ নির্বাচন কমিশন গঠন করেছেন। নির্বাচন কমিশন স্বাধীনভাবে কাজ করছে।’

যুক্তফ্রন্টের পাঁচ দফা দাবি বিএনপির দাবির সঙ্গে মিলে গেছে কিনা সাংবাদিকদের এমন  প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘এটা মিলে গেল কিনা তা দেখা আমাদের কোনও বিষয় না। বিএনপি কার সঙ্গে যাবে, কীভাবে যাবে তা আমাদের বিষয় না। আমরা গণমাধ্যমের মাধ্যমে জানতে পেরেছি যুক্তফ্রন্টের নেতারা বলেছেন, বিএনপির প্রধান মিত্র জামায়াতে ইসলামী থাকলে, তারা বিএনপির সঙ্গে যাবে না। এখানে তো আমাদের কোনও মন্তব্য নেই। তবে নতুন নতুন জোট হলে স্বাগত, শত ফুল ফুটুক। গণতন্ত্রতো, অসুবিধা নেই। নতুন নতুন জোট হোক, নির্বাচন করুক।’

বিএনপি মহাসচিবের যুক্তরাষ্ট্র সফর প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘‘সাহস থাকলে জনগণের কাছে নালিশ করুন। বিদেশে গিয়ে নালিশ করে দেশকে কেন খাটো করছেন। জাতিসংঘ মহাসচিবের আমন্ত্রণ, বাস্তবে দেখা গেল এমন কোনও আমন্ত্রণ নেই। কী রকম তারা প্রতরণা করে, রাজনীতিতে ছদ্মবেশী প্রতারণা পার্টির নাম বিএনপি। বিএনপি এখন বিদেশিদের কাছে ‘বাংলাদেশ কান্নাকাটি পার্টি’ হয়ে গেছে।’’

বিএনপি নির্বাচনে না এলে যুক্তফ্রন্টই বিএনপির বিকল্প কিনা সাংবাদিকদের এমন লিখিত প্রশ্নের জবাবে কাদের বলেন, ‘সেটা আমরা জানি না। তবে আমরা জানি বিএনপি না এলেও এবার প্রতিদ্বন্দ্বীর অভাব নাই, বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতার ফাঁদ তৈরির কোনও সুযোগ নেই। সবাই প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেই এবার নির্বাচিত হবে।’

আইডিইবি সভাপতি একেএম হামিদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক শামসুর রহমান।

দক্ষ ও বুদ্ধিভিত্তিক জাতি গঠনে পুষ্টিমান উন্নয়ন অত্যাবশ্যকীয়

0

দক্ষ ও বুদ্ধিভিত্তিক জাতি গঠনে আমাদের দৈনন্দিন খাদ্য তালিকায় পুষ্টিমান উন্নয়ন অত্যাবশ্যকীয় । খাদ্যে আমাদের স্বয়ংসম্পূর্ণতা এসেছে। সময় এসেছে এখন খাদ্যে পুষ্টিমান নিরুপণ করার।

আজ (রবিবার) রাজধানীর মানিক মিয়া এভিনিউ এর সেচ ভবনে বাংলাদেশ ফলিত পুষ্টি গবেষণা ও প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট (বারটান) এর প্রধান কার্যালয়ে খাদ্য ভিত্তিক পুষ্টি বিষয়ক ৫ দিনব্যাপী প্রশিক্ষক-প্রশিক্ষণের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তারা এ কথা বলেন।

সমন্বিত কৃষি উন্নয়নের মাধ্যমে পুষ্টি ও খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণ প্রকল্প (বারটান অংগ) এর আওতায় বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন দপ্তর/সংস্থার ৯বম/তদূর্ধ্ব গ্রেডের ৩০ জন কর্মকর্তা অংশ নেন। বাংলাদেশ ফলিত পুষ্টি গবেষণা ও প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট (বারটান) এর পরিচালক (যুগ্মসচিব) কাজী আবুল কালাম এতে সভাপতিত্ব করেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের পরিচালক (সরেজমিন উইং) ড. মো. আবদুল মুঈদ বলেন, নিরাপদ খাদ্যের দিকে আমাদের ধাবিত হতে হবে। বর্তমানে বাংলাদেশে ২৬ শতাংশ মহিলা রক্ত স¦ল্পতায় ভোগছেন। খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ন হওয়ার পরও পুষ্টির ঘাটতি রয়েছে। বর্হিবিশ্বে খাদ্য গ্রহণ করার আগে ক্যালরি পরিমাপ করে খাদ্য গ্রহণ করে। জনগণের পুষ্টিস্তর উন্নয়নে তাই জন্য সচেতনতা বৃদ্ধি করা প্রয়োজন।

বিশেষ অতিথি হিসেবে প্রকল্প পরিচালক মহাম্মদ মাইদুর রহমান বলেন, এ প্রকল্প ২৯ টি জেলার হাওর-বাওর ও দারিদ্র প্রবণ ৮৮ টি উপজেলায় বাস্তবায়িত হচ্ছে। জনগণের পুষ্টিস্তর উন্নয়ন ও পুষ্টি সম্পর্কিত সচেতনতা বৃদ্ধিতে এ প্রকল্প গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে।

সভাপতির বক্তব্যে কাজী আবুল কালাম প্রশিক্ষণার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন,‘৫ দিনব্যাপী প্রশিক্ষণের ফলে আপনারা যে জ্ঞান অর্জন করবেন তা স্ব স্ব কর্মক্ষেত্রে খাদ্য, পুষ্টি ও স্বাস্থ্য সম্পর্কিত জ্ঞান জনগণকে অবহিত করার ফলেই আজকের এ প্রশিক্ষণ কর্মসূচি সার্থক হবে’।

এর আগে স্বাগত বক্তব্যে বারটান-এর প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা (চঃদাঃ) ও প্রকল্প ব্যবস্থাপক জ্যোতি লাল বড়–য়া বলেন,‘মারাত্মক অপুষ্টি জনিত খর্বাকৃতি ও কৃশকায় বাংলাদেশে প্রকট আকারে বিদ্যমান। জন সাধারণের পুষ্টি বিষয়ে সচেতনতার অভাব, রন্ধন প্রক্রিয়ায় পুষ্টির অপচয় ও খাদ্য সংরক্ষণ প্রক্রিয়ায় পুষ্টির অপচয় এর অন্যতম কারণ’।

অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি হিসেবে বারটান-এর প্রাক্তন প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ও পুষ্টি পরামর্শক মো. মাহফুজ আলী উপস্থিত ছিলেন। এ ছাড়া বারটানের বিজ্ঞানী ও বিভিন্ন স্তরের কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ উদ্ভোধনী অনুষ্ঠানে অংশ নেন। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন বারটান-এর সহকারী বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা মো. কাওসার আহমেদ।

এ প্রশিক্ষণ কর্মসূচিতে ২৭ টি সেসন থাকবে এবং বারডেমে সরেজমিন পরিদর্শন ও প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে’।

সংকটের সময় এলিটরা কেটে পড়ে: ড. শাম্মী আহমেদ

0

আওয়ামী লীগের আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ড. শাম্মী আহমেদ বলেছেন, অতীত ইতিহাসে দেখা গেছে, দলের কোনো সংকটের সময় এলিটরা কেটে পড়ে। হঠাৎ করে তারা দল নিরপেক্ষ হয়ে যান। কিন্তু দল যখন ক্ষমতায় থাকে তখন তারা নানা ভাবে ফায়দা হাসিল করেন। যারা চরম দুঃসময়েও আওয়ামী লীগকে ছেড়ে যায় না বা যাবে না তাদের দিয়েই দলের কমিটি গঠন করতে হবে।

রোববার সকালে রাজধানীর ইস্কাটনে আওয়ামী লীগের আন্তর্জাতিক বিষয়ক উপ কমিটি আয়োজিত এক কর্মশালায় শাম্মী আহমেদ একথা বলেন।

আন্তর্জাতিক অঙ্গণে বাংলাদেশের ইতিবাচক দিকগুলো তুলে ধরার কর্মপরিকল্পনা নির্ধারণ করতে এই কর্মশালার আয়োজন করা হয়। সভায় বেশ কয়েকজন সাবেক রাষ্ট্রদূত তাদের মতামত তুলে ধরেন। তারা বলেন, সরকারের ইতিবাচক কর্মকাণ্ড বিশ্ববাসীর সামনে তুলে ধরতে বিদেশে আওয়ামী লীগ ও এর বিভিন্ন সহযোগী সংগঠনগুলোর কমিটিতে এলিট শ্রেণির লোকদের আনতে হবে।

জবাবে শাম্মী আহমেদ বলেন, ৭৫ সালের ১৫ আগস্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর আওয়ামী লীগের এলিট হিসেবে যারা পরিচিত ছিল তারা রাতারাতি সুর বদল করে ফেলেছিল। দীর্ঘ ২১ বছর আওয়ামী লীগের চরম দুঃসময়ে সাধারণ নেতাকর্মীরা রাজপথে আন্দোলন করেছে। এক এগার সরকারের শাসনামলে আওয়ামী লীগের সাধারণ নেতাকর্মীরাই শেখ হাসিনার মুক্তির দাবিতে রাজপথে আন্দোলন করেছে। তখন আমরা এলিটদের খুঁজে পাইনি বলেন শাম্মী আহমেদ।

পূর্ণগঠন হলো জাতীয় গণতা‌ন্ত্রিক জোট

0

ন্যাশনাল ডে‌মো‌ক্রে‌ডিট অ্যালা‌য়েন্স দল‌কে পুন:গঠন ক‌রে জাতীয় গণতা‌ন্ত্রিক জোট করা হ‌য়ে‌ছে। জোটটির চেয়ারম্যান করা হয়েছে আলমগীর মজুমদারকে ও মহাস‌চিব করা হয়েছে বিএম নাজমুল হককে।

র‌বিবার (১৫ সে‌প্টেম্বর) জাতীয় প্রেসক্লা‌বের কনফা‌রেন্স লাউ‌ঞ্জে এক সংবাদ স‌ম্মেল‌নে এ ঘোষণা করা হ‌য়ে‌ছে।

জো‌টের চেয়ারম্যান আলমগীর মজুমদার জানান, ‘২০১৭ সা‌লে ডে‌মো‌ক্রে‌টিক অ্যালা‌য়েন্স এর যাত্রা শুরু করা হয়। ১৮ মাস প‌রে ন্যাশনাল ডে‌মো‌ক্রে‌টিক অ্যালা‌য়েন্স নামকরণ করা হয়। কিন্তু বর্তমান সম‌য়ের রাজ‌নৈ‌তিক বাস্তবতা‌কে স্বার্থক ও সফল ভা‌বে মোকা‌বেলা করা এবং আগা‌মী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচ‌নে অংশগ্রহণ এর লক্ষ্যে এই জোট করা হয়েছে।

বাংলা‌দেশ জাতীয় পা‌র্টি (যার নিবন্ধন নং ২৮, প্রতীক কাঠাল) সহ কিছু সমমনা রাজ‌নৈ‌তিক দল রয়েছে এই জোটে বলে তিনি জানান।

সংবাদ স‌ম্মেল‌নে সব দ‌লের ও জো‌টের শরীকরা উপ‌স্থিত ছি‌লেন।

জাতীয় নির্বাচনের পর ডাকসু নির্বাচন চায় ছাত্রলীগ

0

আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) নির্বাচন চায় বাংলাদেশ ছাত্রলীগ। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি সঞ্জিৎ চন্দ্র দাস সাংবাদিকদের জানান, পরিবেশ পরিষদের সভায় এমন দাবি জানিয়েছে তার সংগঠন।

সঞ্জিৎ চন্দ্র দাস বলেন, আমরা নির্দিষ্ট কোনো সময়ের মধ্যে ডাকসু নির্বাচন দিতে বলিনি। ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে আমরা আসন্ন জাতীয় নির্বাচনের পরে ডাকসু নির্বাচনের দাবি জানিয়েছি। তবে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন যদি এর আগে নির্বাচনের আয়োজন করে তাহলে ছাত্রলীগ নির্বাচনে অংশগ্রহণ করার জন্য প্রস্তুত।

তিনি বলেন, আমরা বলেছি, নির্বাচনের ব্যাপারে ছাত্রলীগ সব ধরণের সাহায্য করতে প্রস্তুত।

তিনি আরও বলেন, যারা নিয়মিত ছাত্র যারা মাদকসেবী নয়, যাদের নামে কোন মামলা নেয় তারাই এই নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবে। কেউ যদি ইচ্ছা করে হলে না থেকে বাহিরে বিলাসী জীবন যাপন করে বলে আমরা হলে থাকতে পারি না তাহলে তো আমাদের করার কিছু নেই।

ভালো চাইলে নির্দলীয় সরকার গঠন করুন: প্রধানমন্ত্রীকে রব

0

সুষ্ঠু নির্বাচনের স্বার্থে সব দলের সঙ্গে আলোচনা করে নির্দলীয় সরকার গঠন করার জন্য প্রধানমন্ত্রীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন জাসদ সভাপতি ও জাতীয় ঐক্যের নেতা আ স ম আব্দুর রব। তিনি বলেন, আপনার ভালো চাই বলেই বলছি, ৯ বছর চালিয়েছেন এখন সুষ্ঠু নির্বাচনের ব্যবস্থা করুন।

রবিবার (১৫ সেপ্টেম্বর) জাতীয় প্রেসক্লাবের কনফারেন্স লাউঞ্জে বাংলাদেশ বাম ফ্রন্টের (মার্কসবাদী)উদ্যোগে ‘নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন ও নাগরিক ভাবনা’ শীর্ষক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন

প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে রব বলেছেন, আগামী নির্বাচনে নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকার গঠন করুন। জোর করে ক্ষমতা দখল করবেন না, তাহলে দেখবেন আপনার অধীনে নির্বাচনে অংশ নেয়ার মত কোনও প্রার্থীই পাবেন না।

তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীকে বলব আপনি শুধু পদত্যাগ করেই দেখুন, আপনার চারপাশে যে সাংগু-পাংগু আছে তাদের খুঁজে পাবেন না। বঙ্গবন্ধুও পায়নি, আপনিও পাবেন না।’

তিনি আরও বলেন, ‘আপনি আমার প্রতিদ্বন্দ্বি হতে পারেন কিন্তু আমিও আপনার ক্ষতি বা মৃত্যুক চাই না। ভালো চাই বলেই বলছি, ৯ বছর চালিয়েছেন এখন সুষ্ঠু নির্বাচনের ব্যবস্থা করেন। সব দলের সাথে আলোচনা করে নির্দলীয় সরকার গঠন করুন।কারণ আপনাকে চলে যেতে হবে।’

ইভিএম দিয়ে আগামিতে কোনও নির্বাচন হবে না মন্তব্য করে তিনি বলেন, ‘আইন পাস না হওয়ার আগেই ইভিএমের জন্য ৪ হাজার কোটি টাকা বাজেট করেছেন। আসলে এই টাকা ভাগাভাগী করে খাওয়ার জন্য বাজেট করা হয়েছে।’

জাতীয় ঐক্যর মাধ্যমে আন্দোলন করে এই সরকারের পতন করা হবে বলেও তিনি মন্তব্য করেন।

কমরেড ডাক্তার এম এ সামাদের সভাপতিত্বে সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন সাবেক এমপি অধ্যাপক হুমায়ুন কবির ইনু প্রমুখ।

জনপ্রিয়

গরম খবর