বুধবার, নভেম্বর ১৪, ২০১৮
Home Blog Page 5

একই দিন নির্বাচন পেছানোর দাবিতে ইসিকে চিঠি দিয়েছে যুক্তফ্রন্ট

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের পাশাপাশি এবার যুক্তফ্রন্টও একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন পেছানোর দাবি জানিয়েছে। নির্বাচন এক সপ্তাহ পেছানোর দাবি জানিয়ে নির্বাচন কমিশনকে (ইসি) চিঠি দিয়েছে যুক্তফ্রন্ট।

রবিবার (১১ নভেম্বর) বিকেলে রাজধানীর আগারগাঁওস্থ নির্বাচন কমিশনের (ইসি) কাছে বিকল্পধারা বাংলাদেশের প্রেসিডেন্ট ও যুক্তফ্রন্টের চেয়ারম্যান অধ্যাপক এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে এ দাবি জানায় যুক্তফ্রন্ট।

চিঠিতে বলা হয়, ‘একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিলকে আমরা গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করেছি। ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী স্বল্পসময়ে প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র গ্রহণ, যাচাই-বাছাই, সাক্ষাৎকার ইত্যাদি ব্যবস্থাগ্রহণ কঠিন হবে।’

চিঠিতে আরও বলা হয়, ‘দেশের সুষ্ঠু নির্বাচনের স্বার্থে সৎ ও সুশীল প্রার্থীদের মনোনয়ন দেওয়ার প্রয়োজনে আমরা মনে করি, মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার তারিখ এক সপ্তাহ পিছিয়ে ১৯ নভেম্বরের পরিবর্তে ২৬ নভেম্বর করা হোক। মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই ২২ নভেম্বরের পরিবর্তে ২৯ নভেম্বর, মনোনয়ন প্রত্যাহার ২৯ নভেম্বরের পরিবর্তে ৫ ডিসেম্বর করা হোক। অনুরূপভাবে ভোট গ্রহণের তারিখ ২৩ ডিসেম্বরের পরিবর্তে ২৯ ডিসেম্বর করার অনুরোধ করছি।’

অন্যদিকে একই দিন নির্বাচন পেছানোর দাবিতে ইসিকে চিঠি দিয়েছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। তারা নির্বাচন এক মাস পেছানোর দাবি করেছে।

উল্লেখ্য, গত ৮ নভেম্বর জাতির উদ্দেশ্যে দেয়া এক ভাষণে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদা। তফসিল অনযায়ী, মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার শেষ দিন ১৯ নভেম্বর। মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই করা হবে ২২ নভেম্বর। প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিন ২৯ নভেম্বর। আর ভোট হবে ২৩ ডিসেম্বর।

‘ধানের শীষ’ ও ‘ছাতা’ প্রতীক চায় এলডিপি

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ধানের শীষ ও ছাতা এই দুই প্রতীকে নির্বাচন করতে চায় বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের শরীক লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি-এলডিপি।

রবিবার (১১ নভেম্বর) রাজধানীর আগারগাঁওয়ে অবস্থিত নির্বাচন কমিশনের (ইসি) কাছে এই চিঠি জমা দেন এলডিপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম-মহাসচিব শাহাদাত হোসেন সেলিম।

এলডিপির প্রেসিডেন্ট ড. অলি আহমেদ স্বাক্ষরিত চিঠিতে বলা হয়, ‘এলডিপির মনোনীত প্রার্থীদের মধ্যে কেউ কেউ এলডিপির প্রতীক ছাতা মার্কা নিয়ে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন করবেন। আবার কয়েকজন প্রার্থী ২০ দলীয় জোটের প্রধান শরীক দল বিএনপির প্রতীক ধানের প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে অংশ নেয়ার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন।’

ইসিতে চিঠি দেওয়ার পর বিষয়টি নিয়ে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কারো সঙ্গে কথা বলার সুযোগ হয়নি বলে জানান শাহাদাত হোসেন।

তিনি বলেন, ‘দুই প্রতীকে নির্বাচনের বিষয়টি আমরা নির্বাচন কমিশনকে জানিয়েছি। তারা আমাদের আবেদন গ্রহণ করবে কি না, সেটা তাদের ব্যাপার। আইনে থাকলে গ্রহণ করবেন, না থাকলে করবেন না। ইসি এ বিষয়ে কী সিদ্ধান্ত নেন, সেটা আমাদের আনুষ্ঠানিকভাবে জানাবেন বলে আশা করছি।’

এর আগে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ) ও বাংলাদেশ তরিকত ডোরেশন (বিটিএফ) নৌকা প্রতীকে নির্বাচনে অংশ নেয়ার কথা জানিয়ে চিঠি দেয় ইসিকে।

‘যাদের ধর্মীয় জ্ঞানে স্বল্পতা রয়েছে তারাই সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদে ঝুঁকে পড়ে’

যাদের ধর্মীয় জ্ঞানে স্বল্পতা রয়েছে তারাই সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদে ঝুঁকে পড়ে বলে মন্তব্য করেছেন খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম। রবিবার (১১ নভেম্বর) জাতীয় প্রেসক্লাব মিলনায়তনে বাংলাদেশ বিশ্ব শান্তি আহবায়ক সমিতি আয়োজনে অগ্রবাদ ধর্ম ও জঙ্গিবিরোধী আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী ধর্মীয় শিক্ষা গ্রহণ করার আহবান করে বলেন, ‘আপনারা যারা ধর্মীয় শিক্ষক রয়েছেন তাদের প্রতি আমার আবেদন যারা ধর্মীয় শিক্ষায় শিক্ষিত না তাদেরকে ধর্মীয় শিক্ষায় শিক্ষিত করাতে আপনারা যথাযথ শিক্ষা দান করবেন। এবং যাতে করে তারা জঙ্গিবাদের সাথে সঙ্গবদ্ধ না হতো পারে।’

মাদ্রাসা ছাত্ররা জঙ্গি নয় উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশে বড় বড় জঙ্গি কর্মকাণ্ড কারা করেছে? তারা সবাই নামকরা বিদ্যালয়ের ছাত্র, ইংলিশ মিডিয়াম ছাত্র। তাদের জঙ্গি কর্মকাণ্ডে লিপ্ত হওয়ার একমাত্র কারণ তারা ধর্মীয় শিক্ষায় শিক্ষিত না। তারা যদি সঠিক ধর্ম শিক্ষা পেতো তাহলে এই জঙ্গি কর্মকাণ্ড সাথে সংযোগ হতো না।’

এ সময় তিনি আরও বলেন, ‘জঙ্গি কর্মকাণ্ড করে ইহুদি-নাছারা তারা মুসলমানদের মধ্যে বিরোধ সৃষ্টি করে অস্ত্র বিক্রি করে থাকে তারা বাংলাদেশেও এটা চেষ্টা করেছিল কিন্তু পারে নাই।’

তিনি ফেসবুকের সুফলতা-কুফলতা তুলে ধরে বলেন, ‘বর্তমান ইন্টারনেটের মাধ্যমে জঙ্গি কর্মকাণ্ড পরিচালিত হচ্ছে যারা ধর্ম সম্পর্কে তেমন জানে না তাদেরকে ভুল বুঝিয়ে এই জঙ্গি কর্মকাণ্ডের সাথে সংযোগ করছে। ফেসবুক একটি ভালো জিনিস তবে এটা খারাপের দিকে পরিচালনা করা থেকে বিরত থাকতে হবে। আমরা ভালো দিকগুলো ব্যবহার করবো এবং মন্দ দিকগুলো থেকে দূরে থাকবো।’

উন্নয়নে বান্ধবদের ভোট দেয়ার আহবান জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আপনারা আগামী নির্বাচনে যারা ভোটার অধিকার প্রয়োগ করবে তাকেই ভোট দিবেন। যারা দেশের উন্নয়নে কাজ করেছে, দেশের শান্তির পক্ষে কাজ করেছে তাদেরকে গ্রহণযোগ্য করবেন।’

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি হযরত মুহাম্মদ আব্দুল বারীর সভাপতিত্বে সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদের চেয়ারম্যান ইসমত কাদির গামা, সংগঠনের সেক্রেটারি ইঞ্জিনিয়ার বেলায়েত হোসেন প্রমুখ।

কাল থেকে মনোনয়নপত্র বিক্রি করবে বিএনপি

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের জন্য আগামীকাল সোমবার (১২ নভেম্বর) থেকে দলীয় মনোনয়ন ফরম বিক্রি শুরু করবে বিএনপি। দলটির নয়াপল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয় থেকে ফরম তুলতে করতে পারবেন নির্বাচনে আগ্রহী প্রার্থীরা।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিএনপির চেয়ারপারসনের মিডিয়া উইংয়ের সদস্য খায়রুল কবির খান  বলেন, ‘সম্ভবত আগামীকাল সোমবার থেকে মনোনয়ন ফরম বিক্রি শুরু হবে। কয়টার সময় শুরু হবে তা এখনও নিশ্চিত নই।’

বিএনপির একজন দায়িত্বশীল নেতা জানান, মনোনয়ন ফরমের মূল্য সম্ভবত ৩০ হাজার টাকা হতে পারে।

এদিকে জোটগতভাবে নির্বাচন করার সিদ্ধান্ত জানিয়ে কোন কোও নিবন্ধিত রাজনৈতিক দল ধানের শীষ প্রতীকে নির্বাচন করবে, এর একটি তালিকা নির্বাচন কমিশনে দিচ্ছে বিএনপি। রবিবার বিকেল ৩টার দিকে চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা বিজন কান্তি সরকার, মিডিয়া উইং সদস্য শায়রুল কবির খান এ চিঠি নিয়ে ইসির উদ্দেশ্যে রওয়ানা হোন।

পুনঃতফসিল নিয়ে আপত্তি নেই: কাদের

পুনঃতফসিল হলে আওয়ামী লীগের আপত্তি নেই বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, ‘নির্বাচনের তফসিল পেছানো হলে বা পুনঃতফসিল হলে আওয়ামী লীগের আপত্তি নেই। কিন্তু সেটা হতে হবে সবার সঙ্গে আলোচনা সাপেক্ষে।’

রবিবার (১১ নভেম্বর) আওয়ামী লীগ সভাপতি ধানমন্ডিস্থ রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘নির্বাচন কমিশনকে বাস্তবসম্মত সিদ্ধান্ত নিতে হবে। কারও চাপের মুখে তফসিল পেছানো বা পুনঃতফসিল করা যাবে না। এবার প্রচুর প্রার্থী। এক আসনের বিপরীতেই ১৫-১৬ জন করে প্রার্থী। এটাই হচ্ছে দলের অভ্যন্তরীণ গণতন্ত্রের সৌন্দর্য। যে কেউ ফরম কিনতে পারেন কিন্তু কেউ দলের বিরুদ্ধে গেলে তাদের আজীবনের জন্য বহিষ্কার করা হবে।’

তিনি বলেন, ‘ক্রিকেটের স্বার্থে আপাতত সাকিব আল হাসান রাজনীতিতে আসছেন না। তবে মাশরাফি বিন মুর্তজা নির্বাচন করবেন।’

এ সময় উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আল হানিফ, ডা. দীপু মনি, জাহাঙ্গীর কবির নানক, আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ, সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক অসীম কুমার উকিল, দফতর সম্পাদক আব্দুস সোবহান গোলাপ প্রমুখ।

নৌকায় মনোনয়নপত্র নিলেন মাশরাফি

বাংলাদেশ ওয়ানডে ক্রিকেট দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন ফরম কিনেছেন। রোববার দুপুর ১টার দিকে ধানমন্ডি কার্যালয়ে উপস্থিত হয়ে নড়াইল-২ আসনের জন্য মনোনয়ন ফরম কেনেন তিনি।

মাশরাফির জন্য আগেই আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ফরম তুলে রাখেন। পরে তার হাতে ফরম তুলে দেন কাদের।

এদিকে মানুষের স্রোত ঠেলে মাশরাফির দলীয় অফিসে প্রবেশে দেরি হয়। কারণ মাশরাফির আগমন উপলক্ষে ধানমন্ডি কার্যালয়ে ব্যাপক জনসমাগম হয়েছে।
হাজার হাজার মানুষ তার প্রতীক্ষায় রয়েছেন অনেক আগে থেকেই। কার্যালয়ের বাইরে ও ভেতরে তিল ধারণের ঠাঁই নেই।

ধানমন্ডি ৩-এ, ও এর সংযোগ সড়কগুলোতে মানুষের পা ফেলার জায়গা নেই।

গতকালই আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের জানান, রোববার মাশরাফি ও সাকিব আল হাসান (টেস্ট দলের অধিনায়ক) মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করবেন। কিন্তু শনিবার রাতে সাকিব নির্বাচন না করার সিদ্ধান্ত নেন।

ভোটের তারিখ এক মাস পেছানোর দাবি ২০ দলীয় জোটের

ভোটের তারিখ ১ মাস পিছিয়ে নতুন তফসিলের দাবি ২০ দলীয় জোটের ।৮ নভেম্বর প্রধান নির্বাচন কমিশনারের ঘোষণা করা তফসিল অনুযায়ী আগামী ২৩ ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণের কথা বলা হলেও ২০ দলীয় জোটের পক্ষ থেকে অন্তত একমাস ভোট পেছানোর দাবি জানানো হয় ।

রোববার (১১ নভেম্বর) দুপুর ১টায় গুলশানে বিএনপির চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ বিষয়ে অানুষ্ঠানিক ঘোষণা দেন ২০ দলীয় জোটের অন্যতম নেতা, লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টির (এলডিপি) চেয়ারম্যান ড. কর্নেল (অব.) অলি আহমদ বীর বিক্রম।

তিনি বলেন, গণতান্ত্রিক ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখতে আমরা নির্বাচনে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

কর্নেল (অব.) অলি বলেন, নির্বাচনে অংশ নিতে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সঙ্গে আমাদের নির্বাচনী সমন্বয় হবে। আমরা আশা করি, নির্বাচনের আগেই খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিয়ে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড নিশ্চিত করা হবে।

প্রায় একই সময়ে জাতীয় প্রেস ক্লাবে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সংবাদ সম্মেলনেও একমাস পিছিয়ে নতুন তফসিল ঘোষণার দাবি জানান ড. কামাল হোসেন।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান, লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টির (এল ডি পি) চেয়ারম্যান ড. কর্নেল (অব.) অলি আহমদ বীর বিক্রম, জামায়াতের কর্মপরিষদ সদস্য মাওলানা আব্দুল হালিম, খেলাফত মজলিশের মহাসচিব ড. আহমেদ আব্দুল কাদের, জাতীয় পার্টির ( কাজী জাফর) মহাসচিব মোস্তফা জামাল হায়দার, বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান সৈয়দ মোহম্মদ ইবরাহিম, জমিতে উলামায়ে ইসলামের নির্বাহী সভাপতি মুফতি মোহম্মদ ওয়াক্কাস, মহাসচিব নূর হোসাইন কাসেমী, মুসলিম লীগের চেয়ারম্যান এ এইস এম কামরুজ্জামান খান, ইসলামী ঐক্যজোটের চেয়ারম্যান মাওলানা অ্যাডভোকেট আব্দুর রকিব, ন্যাপ ভাসানীর চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট আজহারুল ইসলাম, এনপিপির চেয়ারম্যান ড.ফরিদুজ্জামান ফরহাদ, বাংলাদেশ লেবার পার্টির চেয়ারম্যান ডা. মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, জাপার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি তাস মিয়া প্রধান, ডেমোক্রেটিক লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুদ্দিন আহমেদ মণি, পিপলস লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ মাহবুব হোসেন ও বাংলাদেশের সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক সাঈদ আহমেদ।

আন্দোলন ও নির্বাচনের প্রস্ততি একসঙ্গে চলবে: ড.কামাল

৭ দফা দাবি আদায়ের আন্দোলন এবং একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের প্রস্ততি একসঙ্গে চলবে বলে জানিয়েছেন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের প্রধান নেতা ও গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন।

রবিবার (১০ নভেম্বর) দুপুর দেড়টার দিকে জাতীয় প্রেসক্লাবের তিন তলার নতুন হলে এক জনাকীর্ণ সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা জানান।

ড. কামাল হোসেন বলেন, ‘আগামী নির্বাচনে জাতির সামনে বলিষ্ঠ ভূমিকা রাখবে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। জনগণ আজকে ঐক্যবদ্ধ। জনগণ আজকে পরিবর্তন চায়। আইনের শাসন, সংবিধানের মৌলিক অধিকার ও মূল্যবোধ থেকে এই ঐক্য গঠন করা হয়েছে।’

৭ দফা দাবি আদায় না হলে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট শেষ পর্যন্ত নির্বাচনে থাকবে কিনা? জানাতে চাইলে তিনি বলেন, ‘অবস্থা বুঝে ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

প্রবীন এই আইনজীবী বলেন, ‘আমাদের ইতিহাসে দেখা গেছে জনগণ যখনই ঐক্যবব্ধ হয়েছে, তখনই আমাদের অধিকার প্রতিষ্ঠা হয়েছে। জনগণ তাদের অধিকার ফিরিয়ে এনেছে। ইনশাআল্লাহ এইবারও হবে।’

সংবাদ সম্মেলনে কামাল হোসেনের পক্ষে একাদশ জাতীয় নির্বাচনের অংশ নেয়ার ঘোঘণা দেন ঐক্যফ্রন্টের মুখপাত্র ও বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। এছাড়া, ভোটের তফসিল এক মাস পেছানোরও দাবি জানান তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন জেএসডি সভাপতি আ স ম আবদুর রব, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, ঐক্যফ্রন্ট নেতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, মোস্তফা মহসীন মন্টু, সুলতান মো. মুনসুর, অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী, হাবীবুর রহমান হাবীব, জগলুল হায়দার আফ্রিক ও আবদুল মালেক প্রমুখ।

এছাড়াও বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আবদুস সালাম, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকনও সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিতে গত কয়েক দিন ধরে আলোচনা চলছিল বিএনপি ও তাদের শরিক দলগুলোর মধ্যে।

এরই অংশ হিসেবে গতকাল শনিবার বিকেলে চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার গুলশানের রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলের স্থায়ী কমিটির বৈঠক করে বিএনপি। কাছাকাছি সময়ে অপর একটি কক্ষে ২০ দলীয় জোটের শরিকদের সঙ্গেও বৈঠক হয়।

বৈঠক শেষে এলডিপি প্রেসিডেন্ট কর্নেল অলি আহমদ সাংবাদিকদের জানান, নির্বাচনে অংশ নেয়া না নেয়ার ব্যাপারে আগামী দুদিনের মধ্যে সিদ্ধান্ত জানাবে ২০ দল।

মনোনয়ন ফরম কিনলেন এরশাদ

আগামী ২৩ ডিসেম্বর অনুষ্ঠেয় একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের জন্য  জাতীয় পার্টির মনোনয়ন ফরম বিতরণের কার্যক্রমের উদ্বোধন করেছেন দলের চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ।

নিজের জন্য ফরম নিয়ে এ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন তিনি। রবিবার (১১ নভেম্বর) সকালে রাজধানীর গুলশান-১ নম্বরে ইমানুয়েলস মিলনায়তনে এ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন এরশাদ।

এদিকে, দলীয় প্রধানের পরপরই মনোনয়ন ফরম গ্রহণ করেন দলের সিনিয়র কো-চেয়ারম্যান রওশন এরশাদ, কো-চেয়ারম্যান জিএম কাদের, মহাসচিব এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদারসহ দলের সিনিয়র নেতারা।

আগামী ১২ ও ১৩ নভেম্বর সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত মনোনয়ন ফরম বিতরণ করবে জাতীয় পার্টি। ১৪ নভেম্বর থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশীদের সাক্ষাৎকার নিবেন দলের চেয়ারম্যান।

উল্লেখ্য,ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী, মনোনয়নপত্র জমা দেওয়া যাবে ১৯ নভেম্বর পর্যন্ত। মনোনয়নপত্র বাছাই হবে ২২ নভেম্বর। প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ২৯ নভেম্বর। আগামী ২৩ ডিসেম্বর (রোববার) একাদশ সংসদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট সিদ্ধান্ত জানাবে দুপুরে

বিএনপি নেতৃত্বাধীন জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের অধীনে হতে যাওয়া একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে যাবে কি যাবে না সে সিদ্ধান্ত জানাবে দুপুরে।

রবিবার (১১ নভেম্বর) দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে নির্বাচন বিষয়ে সিদ্ধান্ত জানাবে জোটটি। তবে বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২৩ দলীয় জোটের একটি সূত্র জানিয়েছে, সাংবাদ সম্মেলনটি বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার গুলশান কার্যালয়ে হতে পারে।

এর শনিবার (১০ নভেম্বর) রাতে বিএনপির স্থায়ী কমিটি, ২৩ দলীয় জোট ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের বৈঠক শেষে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর জানিয়েছিলেন, রবিবার (আজ) সংবাদ সম্মেলন করে বিস্তারিত জানানো হবে।

মনোনয়ন ফরম কিনলেন প্রেসক্লাব সভাপতি

চাঁদপুর-৪ এ নির্বাচন করতে মনোনয়ন ফরম কিনেছেন জাতীয় প্রেসক্লাবের সভাপতি শফিকুর রহমান।

রোববার সকাল সোয়া ১১টায় ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে গিয়ে ফরম কেনেন তিনি।

ফরম কেনার পর বর্ষীয়ান এই সাংবাদিক বলেন, ‘বাংলাদেশ উন্নয়নের যে পর্যায়ে পৌঁছেছে, তাতে নাম নিতেই গর্ব হয়। শেখ হাসিনার উন্নয়ন অভিযাত্রায় আমি সাথী হতে চাই’।

উল্লেখ্য, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর শুক্রবার সকাল থেকে আওয়ামী লীগ মনোনয়ন ফরম বিক্রি শুরু করেছে। দলীয় মনোনয়ন ফরম কেনার জন্য শুক্রবার থেকেই বিভিন্ন আসনের প্রার্থী ও তাদের শত শত সমর্থক বর্ণিল শোভাযাত্রা নিয়ে জড়ো হচ্ছেন আওয়ামী লীগ কার্যালয়ের সামনে।

শনিবার পর্যন্ত ৩২শ মনোনয়ন ফরম বিক্রি করেছে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ।এবার আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ফরমের দাম ২৫ হাজার থেকে বাড়িয়ে ৩০ হাজার টাকা করা হয়েছে। দলের নির্বাচন পরিচালনা কার্যালয়ে মনোনয়ন ফরম বিক্রি করতে আটটি বিভাগের জন্য আটটি বুথ খোলা হয়েছে। ধানমন্ডিতে দলটির বর্ধিত কার্যালয়ের দোতলা ও তিনতলা থেকে মনোনয়ন ফরম কিনছেন মনোনয়ন প্রত্যাশী ব্যক্তিরা।

নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে যুক্তফ্রন্ট

আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নেওয়ার কথা জানিয়ে নির্বাচন কমিশনকে চিঠি দিয়েছে যুক্তফ্রন্ট। রোববার (১১ নভেম্বর) সকালে বিকল্পধারার সাংগঠনিক সম্পাদক ও যুক্তফ্রন্টের কেন্দ্রীয় নেতা ব্যরিস্টার ওমর ফারুক একটি চিঠি নির্বাচন কমিশনে পৌঁছে দেন।

চিঠিতে বলা হয়েছে, যুক্তফ্রন্ট চেয়ারম্যান ও বিকল্পধারার প্রেসিডেন্ট ড. এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী নির্বাচন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

এছাড়াও, চিঠিতে আরো দুটি বিষয় উল্লেখ করা হয়েছে। নির্বাচন কমিশনের কাছে যুক্তফ্রন্ট জানতে চেয়েছে, ৪টি নিবন্ধিত দলের সমন্বয়ে জোট গঠন করে যুক্তফ্রন্টের প্রতীকে সব দল নির্বাচনে অংশ নিতে পারববে কিনা। তাতে শরিক দলগুলোর নির্বাচনে কোনো প্রভাব পড়বে কিনা।

বিকল্প ধারার সাংগঠনিক সম্পাদক ব্যারিস্টর ওমর ফারুক হোসেন বলেন, নির্বাচন কমিশন জানিয়েছে জোটবদ্ধ দলগুলোর নির্বাচনে অংশ নিতে কোন অসুবিধা হবে না। শরীক দলগুলো যে দলের হয়ে নির্বাচনে অংশ নিবে, শুধু তাদেরকে আলাদাভাবে আবেদন করতে হবে।

বিকল্প ধারার সাংগঠনিক সম্পাদক ব্যারিস্টার ওমর ফারুকের নেতৃত্বে চার সদসস্যের দলটি নির্বাচন কমিশনে যায়।

অন্যদিকে, যুক্তফ্রন্টের শরীকদলগুলো তাদের নির্দিষ্ট প্রতীকে নির্বাচন করলে তাতে জোটে প্রভাব পড়বে কিনা। এ দুটি বিষয় জানতে চেয়ে চিঠি দিয়েছে যুক্তফ্রন্ট।

সূত্র ঃ সারা বাংলা

জনপ্রিয়

গরম খবর