ময়মনসিংহ-৩ (গৌরীপুর) উপ-নির্বাচনে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী কৃষিবিদ সামিউল আলম লিটনের  জন্ম ১৯৭১ সালের ২৪ ফেব্রুয়ারী ময়মনসিংহের গৌরীপুরে । আওয়ামীলীগের  সমর্থক পরিবারের সদস্য হওয়ায়  ১৯৭১ সালের ৫ এপ্রিল  শিশু সামিউল আলম লিটনকে  পাঞ্জাবীরা তুলে নিয়ে যায়। তবে ভাগ্যগুনে তিনি বেচে যান। জীবনে নানা চড়াই উতরাই পেরিয়ে আজ তিনি  কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের সহ সম্পাদক ও  ময়মনসিংহ-৩ ( গৌরীপুর) উপ-নির্বাচনে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী।

পলিটিক্সনিউজ২৪.কম এর কথা সাথে একান্ত সাক্ষাৎকারে তিনি তার রাজনৈতিক জীবন , ময়মনসিংহ-৩ উপ-নির্বাচন  ও অন্যান্য নানা বিষয়ে কথা বলেন ।

সামিউল আলম লিটনে

সামিউল আলম লিটন

পলিটিক্সনিউজ২৪ঃ  আওয়ামী লীগের রাজনীতির সাথে কবে থেকে?

কৃষিবিদ সামিউল আলম লিটনঃ বাবা মা সহ পরিবারের সকলেই ছিলেন আওয়ামীলীগের  সমর্থক। তাই ছোটবেলা থেকেই ছিল আওয়ামীলীগের প্রতি ভালবাসা। সক্রিয় রাজনীতিতে ছিলাম স্কুলজীবন থেকেই। বারোয়ামারী উচ্চ বিদ্যালয় ছাত্রলীগের সম্পাদক হিসেবে রাজনৈতিক জীবনের সূচনা।

পলিটিক্সনিউজ২৪ঃ পরিবারের আর কেউ আওয়ামীলীগের রাজনীতির সাথে জড়িত?

কৃষিবিদ সামিউল আলম লিটনঃ বাবা সরকারি চাকরিজীবী ছিলেন। তাই আওয়ামীলীগের সক্রিয় সমর্থক হলেও কোন পদে ছিলেন না।  আমার ছোট ভাই, মোসাররফ হোসেন আজাদ জুয়েল ঢাকা মহানগর উত্তর যুবলীগের সদস্য।

পলিটিক্সনিউজ২৪ঃ আওয়ামী রাজনীতিতে কখন কি কি পদে ছিলেন?

কৃষিবিদ সামিউল আলম লিটনঃ নাসিরাবাদ কলেজ ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ছিলাম। পরবর্তীতে বাংলাদেশ কৃষি  ইন্সিটিউট , বর্তমান শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নির্বাচিত হই ১৯৯১ সালে এবং  ১৯৯৪ সালে সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হই। মূলত  ১৯৯১ থেকে ১৯৯৬ সালে আওয়ামীলীগ বিরোধী দলে থাকাকালিন অবস্থায় আন্দোলনে শক্ত ভুমিকা রাখায় কারণে সকলের ভালবাসায়  ১৯৯৭ সালে বাংলাদেশ কৃষি ইন্সিটিউট , বর্তমান শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের  ভিপি নির্বাচিত হই। ১৯৯৭ থেকে ২০০১ পর্যন্ত ঢাকা মহানগর উত্তর ছাত্রলীগের যুগ্ম সম্পাদকের দায়িত্তে ছিলাম । ২০০৩ সালে যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য নির্বাচিত হই। সর্বশেষ ২০১২ সালে আওয়ামীলীগের কাউন্সিলে আওয়ামীলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সহ সম্পাদক নির্বাচিত হই।

পলিটিক্সনিউজ২৪ঃ ১/১১ তে আপনার ভূমিকা কি ছিল?

কৃষিবিদ সামিউল আলম লিটনঃ  ২০০৫ সালে উচ্চশিক্ষার জন্য জাপানে যাই। ১/১১ তে আমেরিকা, ইউরোপের দেশসমূহ ও জাপানে অবস্থানরত বাঙ্গালীদের ঐক্যবদ্ধ করে শেখ হাসিনার মুক্তি আন্দোলনে সক্রিয় ভূমিকা রাখি। জাপানে দুতাবাসে স্মারকলিপি দেই।

পলিটিক্সনিউজ২৪ঃ রাজনীতি ছাড়া কোন সামাজিক কর্মকাণ্ডের সাথে জড়িত?

কৃষিবিদ সামিউল আলম লিটনঃ  আমজাদিয়া হাফিজিয়া মাদ্রাসা ও এতিমখানা এবং  বারোয়ামারি উচ্চ বিদ্যালয় জামে মসজিদ  প্রতিষ্ঠা করি। বর্তমানে আমি মসজিদ কমিটির সভাপতি। এছাড়া আমি সাউথ এশিয়ান ইন্সিটিউট টেকনলজি স্কুল প্রতিষ্ঠা করি। গৌরীপুরে প্রতিটি ইউনিয়নে ১০ জন দরিদ্র মেধাবী ছাত্রছাত্রীকে প্রতিবছর বৃত্তি প্রদান করি। এলাকার বিধবা ও এতিমদের নিয়মিত  সহায়তা করি। গৌরীপুরে ১০০ কৃষক সংগঠন আছে। এদেরকে বীজ , চারা, সার,  কীটনাশক ও নানা কৃষি উপকরণ দিয়ে সহায়তা করি।

পলিটিক্সনিউজ২৪ঃ সংসদ সদস্য নির্বাচিত হলে গৌরীপুরের  মানুষের জন্য কি করবেন?

কৃষিবিদ সামিউল আলম লিটনঃ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী , জননেত্রি শেখ হাসিনার ভিসন ২০২১ বাস্তবায়নের জন্য , বাংলাদেশকে মধ্যম আয়ের দেশে রূপান্তরের জন্য অবকাঠামো উন্নয়ন দরকার। আমি সংসদ সদস্য নির্বাচিত হলে গৌরীপুরের  অবকাঠামো উন্নয়ন বিশেষকরে রাস্তাঘাটের উন্নয়ন, কৃষিভিত্তিক শিল্প স্থাপন, শিক্ষা ও শতভাগ সাক্ষরতা নিশ্চিত করব। প্রথম ২ বছরে এলাকার ৫০০০ বেকার যুবকের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করব । কলতাপাড়া – রামগোপালপুরে বেসরকারি  ইকনমিক জোন  গড়ে তোলা হবে আমার অগ্রাধিকারভিত্তিক কাজ।

পলিটিক্সনিউজ২৪ঃ  পলিটিক্সনিউজ২৪.কম কে সময় দেয়ার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ ।

কৃষিবিদ সামিউল আলম লিটনঃ আপনাদেরকেও ধন্যবাদ।

 
প্রকাশক: সালেহ মোহাম্মদ রশীদ অলক
সম্পাদকঃ মাহসাব হোসাইন রনি
বার্তাকক্ষঃ ০১৭১১-৪৬০৬০১ | ই-মেইলঃ news.politicsnews24@gmail.com
 
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি