গাজীপুর সিটি নির্বাচনে দু’দলেই ঐক্যের চেষ্টা

0
20

গাজীপুর সিটি নির্বাচনে দু’দলেই ঐক্যের চেষ্টা

গাজীপুর সিটি করপোরেশনে এখন নির্বাচনী হাওয়া। আওয়ামী লীগ ও বিএনপি প্রার্থীরা নৌকা ও ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে নির্বাচনী মাঠে। দলের মনোনয়নবঞ্চিত বিএনপির বর্তমান মেয়র ও মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি অ্যাডভোকেট আজমত উল্লা খানের অনুসারী ক্ষুব্ধ নেতা-কর্মীদের ক্ষোভ-হতাশা মেটানোর চেষ্টা চলছে। অপরদিকে গতবারের নিজেদের মধ্যে ভুল-ক্রটি শুধরে নিয়ে বিজয়ী হওয়ার আশা করছেন আওয়ামী লীগ দলীয় প্রার্থী মহানগর আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম। বিএনপির দলীয় প্রার্থী দলের কেন্দ্রীয় নির্বাহী সদস্য হাসান উদ্দিন সরকার বলছেন, দলীয় ঐক্য অটুট রয়েছে, জনগণ ধানের শীষকে বিজয়ী করবে। বড় দুই দলের প্রার্থীদের পাশাপাশি দলীয় কর্মী-সমর্থকরাও তাদের নিজেদের পক্ষে ঐক্য আরো জোরালো করে দলের মনোনীত প্রার্থীকে বিজয়ী করার প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

নির্বাচনে দলীয় প্রতীক পেয়ে উচ্ছ্বসিত আওয়ামী লীগ ও বিএনপির প্রার্থীরা নির্বাচনে বিজয়ী হতে দলীয় কর্মপন্থা নির্ধারণ ও ভোটারদের মন জয়ে নানা প্রস্তুতি নিচ্ছেন। এ ছাড়া একই দলের মনোনয়ন বঞ্চিত প্রার্থী ও তাদের সমর্থকদের রাগ, ক্ষোভ ও অভিমান মিটিয়ে নৌকা ও ধানের শিষের পক্ষে কাজ করার জন্য চেষ্টা করে যাচ্ছেন।
হাসান উদ্দীন সরকার বিএনপি নেতা সোহরাব উদ্দীন ও অপর মনোনয়ন প্রত্যাশী নেতা শওকত হোসেন সরকারসহ দলের নেতাদের নিয়ে বর্তমান মেয়র অধ্যাপক এম এ মান্নানের বাসায় গিয়ে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেছেন এবং নির্বাচনী মাঠে তাঁর সার্বিক সহযোগিতা ও পরামর্শ চেয়েছেন।

এর আগে দলীয় মনোনয়ন নিশ্চিত করার পরপরই দুই দলের প্রার্থীরা নিজেদের বাসায় নগরীর বিভিন্ন ওয়ার্ড ও এলাকা থেকে আসা লোকজনের সঙ্গে মতবিনিময় করছেন। তাদের নানা দিকনির্দেশনা দিচ্ছেন। এদিকে বিভিন্ন ওয়ার্ড ও সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর প্রার্থীরা রিটার্নিং কার্যালয়ে থেকে মনোনয়নপত্র উত্তোলন করছেন। আগামী ১২ই এপ্রিল পর্যন্ত মনোনয়নপত্র উত্তোলন ও জমা দেয়া হবে। প্রাথীদের ফুল ও মিষ্টি নিয়ে অভিনন্দন জানাচ্ছেন নেতা-কর্মী ও এলাকার লোকজন।

বিএনপির নেতা-কর্মীরা জানান, বর্তমান মেয়র অধ্যাপক এম এ মান্নান শারীরিক অসুস্থতার জন্য তার সঙ্গে আলোচনা করে হাসান উদ্দিন সরকারকে মনোনয়ন দিয়েছে দল। নির্বাচনে আমরা ঐক্যবদ্ধ আছি। ঐক্যবদ্ধ থেকে গত নির্বাচনে যেমন লক্ষাধিক ভোটের ব্যবধানে মেয়র নির্বাচিত করেছি, এবারও আমরা আশা করছি আরো বিপুল ভোটের ব্যবধানে হাসান উদ্দিন সরকার বিজয়ী হবেন। বিএনপির প্রার্থী হাসান উদ্দিন সরকার বলেন, বেগম খালেদা জিয়া কারান্তরীণ। নেতাকর্মীরা নির্যাতিত ও ব্যথিত। আমরা ঐক্যবদ্ধ আছি। ঐক্যবদ্ধভাবেই গতবারের নির্বাচনে বিএনপির বিজয়ের ধারা অব্যাহত রাখা হবে।

আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী জাহাঙ্গীর আলম গত নির্বাচনে দলীয় ব্যর্থতা ও অনৈক্য সরিয়ে নৌকাকে বিজয়ী করার ব্যাপারে আশা প্রকাশ করেছেন। তার কর্মী-সমর্থকরা বলছেন, মনোনয়ন নিয়ে এ মুহূর্তে দলে বিভেদ থাকলেও নৌকার প্রশ্নে তা দ্রুত কেটে যাবে। কারণ সবাই নৌকার লোক, আওয়ামী লীগের লোক। আওয়ামী লীগ প্রধান ও প্রধানমন্ত্রীকে শ্রদ্ধা ও সম্মান জানিয়ে দলের সবাই ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করবে।

গাজীপুর সিটি করপোরেশনের ৫৭টি ওয়ার্ডে ভোটার সংখ্যা ১১ লাখ ৩৭ হাজার ১১২ জন। আগামী ১৫ই মে নির্বাচনে কে হচ্ছেন নগর পিতা সেদিকে তাকিয়ে আছেন ভোটার এবং এলাকাবাসী।