‘ছাত্রলীগের বর্তমান নেতৃত্ব শতভাগ সফল’

80
ছাত্রলীগের সভাপতি মো. সাইফুর রহমান সোহাগ ও সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসাইন।
ছাত্রলীগের সভাপতি মো. সাইফুর রহমান সোহাগ ও সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসাইন।

‘ছাত্রলীগের বর্তমান নেতৃত্ব শতভাগ সফল’

ছাত্রলীগের সভাপতি মো. সাইফুর রহমান সোহাগ ও সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসাইন।
ছাত্রলীগের সভাপতি মো. সাইফুর রহমান সোহাগ ও সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসাইন।

বাংলাদেশ ছাত্রলীগের বর্তমান নেতৃত্ব শতভাগ সফল বলে দাবি করেছেন সংগঠনের সভাপতি মো. সাইফুর রহমান সোহাগ। তিনি বলেছেন, ২০১৫ সালের ২৬ জুলাইয়ের পর এখন পর্যন্ত দায়িত্ব পালনে আমরা সফল। আর আমাদের সাংগঠনিক নেত্রী একমাত্র অভিভাবক যখন যে নিদের্শনা দিয়েছেন, কমিটি গঠনসহ বিভিন্ন কাজ সফলতার সাথেই দায়িত্ব পালন করেছি। সাংগঠনিক দায়িত্ব পালনে ভুলত্রুটি থাকতে পারে। কিন্তু দায়িত্ব পালনে আমি ব্যর্থ হয়েছি-এমন না। আর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এসএম জাকির হোসাইন বলেছেন, ছাত্রলীগ সভাপতি বলেছেন-আমরা সফল। তার বক্তব্যের সঙ্গে আমিও একমত। বর্তমান কমিটির যত সফলতা তার অংশীদার কেন্দ্রীয় কমিটির সব নেতা। যদি কোনো ত্রুটিবিচ্যুতি থাকে তাহলে এর দায়দায়িত্ব আমরা দুজন( সভাপতি-সম্পাদক) নিয়ে নিচ্ছি। ব্যর্থতা-সফলতার বিচার করার দায়িত্ব সারাদেশের ছাত্রলীগ নেতাকর্মী ও আপনাদের (মিডিয়া)।

বৃহস্পতিবার সকালে গুলিস্তানে সংগঠনের কার্যালয়ে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সম্মেলন উপলক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে সংগঠনের দুই শীর্ষ নেতা এ দাবি করেন।

সংবাদ সম্মেলনে ছাত্রলীগ সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ আগামী ১১  ও ১২ মে কেন্দ্রীয়, ২৪ ও ২৬ এপ্রিল ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ও উত্তর এবং ২৯ এপ্রিল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সম্মেলনের তারিখ ঘোষণা করেন। রাজধানীর তিনটি শক্তিশালী শাখার সম্মেলনের তারিখ ঘোষণার সময় শীর্ষ ৫ নেতাই উপস্থিত ছিলেন না। একমাত্র ঢাকা মহানগর উত্তরের সাধারণ সম্পাদক মহিউদ্দিন আহমেদ সেখানে ছিলেন। সম্মেলনের স্থান জানানো হয়নি। স্থানটি নির্ধারণ করবেন আওয়ামী লীগ সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

ছাত্রলীগ সভাপতির কাছে প্রশ্ন ছিল-আপনাদের দায়িত্ব পালনে কোনো ব্যর্থতা দেখছেন কিনা? জবাবে তিনি বলেন, না-আমরা কোনো ব্যর্থতা দেখছি না। আমরা মনে করি দায়িত্ব পালনে আমরা শতভাগ সফল। পাল্টা প্রশ্ন করা হয়, বার বার নেতিবাচক সংবাদের শিরোনাম হয়েছে-ছাত্রলীগ! তাহলে—এর জবাবে সাইফুর রহমান সোহাগ উদাহরণ হিসেবে দুই বন্ধুর একটি গল্প বলেন। তিনি বলেন, একই  ক্লাসের দুই বন্ধুর মধ্যে মতবিরোধ নিয়ে মারামারির ঘটনা ঘটলো-অবশ্য তারা দুইজনই ছাত্রলীগ কর্মী। এখানে শিরোনাম কি হবে? দুই বন্ধুর মধ্যে মারামারি হলো-এটা কি শিরোনাম করবেন? করবেন না। আপনারা শিরোনাম করবেন ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ। শিরোনামের নেগেটিভ-প্রজেটিভ বিষয় নিয়ে আমরা ভাবি না।

ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসাইন বলেন, দায়িত্ব পালনে কতটুকু করেছি, তার বিচার করবে সারাদেশের ছাত্রলীগ।

কোনো চাপের কারণে সম্মেলন হচ্ছে কিনা? এমন প্রশ্নের জবাবে ছাত্রলীগ সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ বলেন, আমাদের একমাত্র সাংগঠনিক নেত্রী দেশরত্ম শেখ হাসিনা। তার ইচ্ছে অনুযায়ীই আমরা ছাত্রলীগের সম্মেলন করছি।

কমিটি ভোটের মাধ্যমে নাকি সিলেকশনে-এমন প্রশ্নের জবাবে ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসাইন বলেন, আমরা গঠণতন্ত্র অনুযায়ী সব ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করবো। নেত্রী যেভাবে চাইবেন-সেভাবেই নেতা নির্বাচিত করা হবে।

(ছাত্রলীগের গঠনতন্ত্রে ২৭ বছর বয়স নির্ধারণ করা আছে। অবশ্য আওয়ামী লীগ সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দুই বছর বাড়িয়ে তা ২৯ বছর বয়স করেছেন।)

লিখিত বক্তব্যে ছাত্রলীগ সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ বলেন, স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মাণ, মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বাস্তবায়ন, অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গঠন, দেশরত্ম শেখ হাসিনার রূপকল্প ২০২১ ও ২০৪১ বাস্তবায়ন এবং একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নৌকার বিজয় সুনিশ্চিত করার লক্ষে ছাত্রলীগের সুশৃঙ্খল কর্মীবাহিনী নিরলভাবে কাজ করে যাচ্ছে। ছাত্রলীগের কর্মকাণ্ডকে আরো গতিশীল ও বেগবান করার লক্ষেই এই সম্মেলনের তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছে।

ছাত্রলীগের ১০৯টি সাংগঠনিক ইউনিটের মধ্যে ৬৮টির সম্মেলন এবং কমিটি গঠন করা হয়েছে বর্তমান আমলে বলে জানান সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক এসএম জাকির হোসাইন। আগামী কয়েকদিনের মধ্যে আরো ইউনিটিতে সম্মেলন ও কমিটি করা হবে বলেও জানান তিনি।

সংবাদ সম্মেলনের শুরুতেই আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর সুস্থতা কামনা করেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসাইন।

স্বপ্লোন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশের উন্নীত হওয়ায় আগামী ৮ এপ্রিল বিশ্ববিদ্যালয়, কলেজ ও সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এবং ৯ এপ্রিল সকল জেলা, মহানগর, হল ও উপজেলা, থানা, পৌরসভায় ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে আনন্দ র‌্যালি অনুষ্ঠিত হবে।

সূত্র: বাংলাদেশ প্রতিদিন