একদিনের ক্রিকেটে এযাবৎকালের যতসব রেকর্ড

157

একদিনের ক্রিকেটে এযাবৎকালের যতসব রেকর্ড

ক্রিকেট মানেই রেকর্ড আর রেকর্ড। আজকে যা রেকর্ড কালকে তা আবার ভেঙ্গে যাচ্ছে। গত বিশ্বকাপেও আমরা দেখেছি কীভাবে রেকর্ড ভেঙ্গে যায় সহজেই, যোগ হয় আরও নতুন রেকর্ড। এখন পর্যন্ত একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে যতগুলো রেকর্ড নিজের অবস্থান ধরে রাখতে পেরেছে সেগুলো নিয়ে আজকের এই পোস্ট। আসুন একনজরে জেনে নিই ক্রিকেট ইতিহাসের আজ পর্যন্ত রেকর্ডগুলির সম্বন্ধে।

১। সর্বোচ্চ রান ভারতের শচীন টেন্ডুলকারের ১৮,৪২৬ রান।

২। সর্বোচ্চ ব্যাটিং গড় নেদারল্যান্ডসের রায়ান টেন ডাসকটের (৬৭)।

৩। সর্বোচ্চ শতক ভারতের শচীন টেন্ডুলকারের ৪৯টি।

৪। সর্বোচ্চ নড়েবড়ে নব্বই ভারতের শচীন টেন্ডুলকারের ১৮টি।

৫। সর্বোচ্চ অর্ধশতক ভারতের শচীন টেন্ডুলকারের ৯৬টি।

৬। সর্বোচ্চ ছয় পাকিস্তানের শহীদ আফ্রিদির ৩৫১টি।

৭। সর্বোচ্চ চার ভারতের শচীন টেন্ডুলকারের ২০১৬টি।

৮। সর্বোচ্চ উইকেট শ্রীলঙ্কার মুথাইয়া মুরালিধরন ৫৩৪টি।

৯। এক ইনিংসে সর্বোচ্চ উইকেট শ্রীলঙ্কার চামিন্দা ভাসের ৮টি।

১০। সর্বোচ্চ ডিসমিসাল শ্রীলঙ্কার কুমার সাঙ্গাকারার ৪৮২টি।

১১। উইকেটকিপারের মধ্যে সর্বোচ্চ ক্যাচ অস্ট্রেলিয়ার অ্যাডাম গিলক্রিস্টের ৪১৭টি।

১২। সর্বোচ্চ স্ট্যাম্পিং শ্রীলঙ্কার কুমার সাঙ্গাকারার ৯৯টি।

১৩। সর্বোচ্চ ক্যাচ শ্রীলঙ্কার মাহেলা জয়াবর্ধনের ২১৮টি।

১৪। ক্যারিয়ারে সর্বোচ্চ ম্যাচ ভারতের শচীন টেন্ডুলকারের ৪৬৩টি।

১৫। ক্যারিয়ারে সর্বোচ্চ সংখ্যক ম্যাচে অস্ট্রেলিয়ার ক্যাপ্টেন রিকি পন্টিং (২৩০টি)।

১৬। ৪০৩ রানের লক্ষে নিউজিল্যান্ড সর্বোচ্চ ২৯০ রানের ব্যবধানে আয়ারল্যান্ডকে পরাজিত করে ১ জুলাই ২০০৮ সালে।

১৭। ৪৬ রানের লক্ষে ৮ উইকেট হাতে রেখে ইংল্যান্ড ২৭৭ বাকী থাকতেই কানাডাকে পরাজিত করে ১৩ জুন ১৯৭৯ সালে।

১৮। ১২১ রানের লক্ষে ভারত ১০ উইকেট হাতে রেখে ১৮১ বল বাকী থাকতেই পশ্চিম আফ্রিকাকে পরাজিত করে ১১ জুন ১৯৭৫ সালে।

১৯। ১৯৯ রানের লক্ষে নিউজিল্যান্ড মাত্র ১ রানে পাকিস্তানকে পরাজিত করে ১৬ অক্টোবর ১৯৭৬ সালে।

২০। ১৮২ রানের লক্ষে ইংল্যান্ড মাত্র ১ উইকেট হাতে রেখে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে পরাজিত করে ৫ সেপ্টেম্বর ১৯৭৩ সালে।

২১। ২০৯ রানের লক্ষে ৩ উইকেট হাতে রেখে ইনিংস-এর শেষ বলে ইংল্যান্ড পাকিস্তানকে পরাজিত করে ২৩ ডিসেম্বর ১৯৭৭।

২২। দলীয় সর্বোচ্চ রান শ্রীলঙ্কার(৪৪৩/৯), বিপক্ষ নেদারল্যান্ডস এবং দিনটি ছিলো ৪ জুলাই ২০০৬।

২৩। দলীয় সর্বনিম্ন রান জিম্বাবুয়ের, ৩৫ রান ১৮ ওভারে, বিপক্ষ শ্রীলঙ্কা, ২৫ এপ্রিল ২০০৪।

২৪। একদিনে দুই দলের সর্বমোট রান ৮৭২, দল দুটি দক্ষিণ আফ্রিকা এবং অস্ট্রেলিয়া, ১২ মার্চ ২০০৬।

২৫। একদিনে দুই দলের সর্বনিম্ন রান ৭৩, দল দুটি কানাডা এবং শ্রীলঙ্কা, ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০০৩।

২৬। দলীয় সর্বোচ্চ রানরেট (৮.৮৬) শ্রীলঙ্কার (৪৪৩/৯) ৫০ ওভারে, বিপক্ষ নেদারল্যান্ডস, ৪ জুলাই ২০০৬।

২৭। ৫০ ওভার ছাড়া দলীয় সর্বোচ্চ রানরেট (১৫.৮৩) নিউজিল্যান্ডের (৯৫/০) ৬ ওভারে, বিপক্ষ বাংলাদেশ, ৩১ ডিসেম্বর ২০০৭।

২৮। ৫০ ওভারে দলীয় সর্বনিম্ন রানরেট (১.১১) কানাডার (৪৫/১০), বিপক্ষ ইংল্যান্ড, ১৩ জুন ১৯৭৯ সালে।

২৯। এক ইনিংসে সর্বোচ্চ ৩টি শতক করেছে দক্ষিণ আফ্রিকা (৪৩৯/২) বিপক্ষ ওয়েস্ট ইন্ডিজ, ১৮ জানুয়ারী ২০১৫।

৩০। এক ম্যাচে সর্বোচ্চ ৪টি শতক হয়েছে অস্ট্রেলিয়া এবং পাকিস্তানের ম্যাচে, ১০ নভেম্বর ১৯৯৮ সালে।

৩১। এক টুর্নামেন্টে সর্বোচ্চ ৩৮টি শতক হয়েছে অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ড আয়োজিত ২০১৫ সালের বিশ্বকাপে।

৩২। এক ম্যাচে সর্বোচ্চ শূন্য ৮টি এবং সেটি হয়েছিলো ২৩ জুন ১৯৭৯ সালে ইংল্যান্ড ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের ম্যাচে।

৩৩। এক ইনিংসে সর্বোচ্চ ৬টি শূন্য রয়েছে পাকিস্তানের এবং সেটি হয়েছিলো ২৫ মে ১৯৮৭ সালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে। সৌজন্যেঃআড্ডাখানা.কম