ছাত্রলীগে পদ প্রত্যাশীদের সাক্ষাৎকার নেবেন প্রধানমন্ত্রী

57

সমঝোতা না হওয়া বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ২৯তম জাতীয় সম্মেলনে নতুন কমিটি ঘোষণা ছাড়াই শেষ হয়। নেতৃত্বে সমন্ধয় আনতে সভাপতি-সম্পাদক প্রার্থীদের সাক্ষাৎকার নেবেন ছাত্রলীগের সাংগঠনিক নেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বুধবার দিবাগত রাতে গণমাধ্যমে সূত্র এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

সূত্র জানায়, ‘ছাত্রলীগের সদ্য বিদায়ী সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ ও সাধারণ সম্পাদক এসএম জাকির হোসাইন গতকাল সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় তাদের সাংগঠনিক নেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকারি বাসভবন গণভবনে যান। রাত ১০টার দিকে তারা বেরিয়ে আসেন। এর মধ্যে দীর্ঘ সময় ছাত্রলীগের নতুন নেতৃত্ব বাছাই নিয়ে বৈঠক হয়। এসময় সোহাগ-জাকির ছাড়াও আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতারা উপস্থিত ছিলেন। ওই বৈঠকে ছাত্রলীগের কমিটির বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়নি।’

জানা যায়, আগামী সপ্তাহে ছাত্রলীগের নতুন কমিটি হবে। এরমধ্যে ছাত্রলীগের সাংগঠনিক নেত্রী শেখ হাসিনা প্রার্থীদের সাক্ষাৎকার নেবেন।যেকোনোদিন প্রার্থীদের গণভবনে ডাকা হতে পারে বলেও সূত্রটি নিশ্চিত করেছে। সেদিন প্রার্থীদের মধ্যে সমঝোতাও করা হতে পারে।

প্রসঙ্গত, ১১ মে ছাত্রলীগের ২৯ জাতীয় সম্মেলনের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী ও ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সভানেত্রী শেখ হাসিনা। এদিন তিনি ছাত্রলীগের কমিটি সমঝোতার মাধ্যমে দেয়ার কথা বলেন। একই সঙ্গে নেতাদের বয়সসীমা ২৮ বছর নির্ধারণ করে দেন। এরপর যথারীতি দ্বিতীয় দিনের কাউন্সিল অধিবেশন হয়। সেদিন ছাত্রলীগের নতুন নেতৃত্ব নির্বাচন না করেই সমাপ্তি ঘোষণা করেন সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ। তিনি বলেন, ‘আমরা খুব কম সময়ের মধ্যে নতুন কমিটি উপহার দেব।’

সেসময় জানা গেছে, ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ প্রার্থীদের তালিকা আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার কাছে জমা দিয়েছেন। তিনি পরবর্তীতে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত দিলে কমিটি করা হবে।