সৌহার্দ্যপূর্ণ পরিবেশই চেয়েছিলাম, এমনটাই থাকবে: লিটন

8

রাজশাহী সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ভোট দিয়েছেন আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী এ এইচ এম খায়রুজ্জামান লিটন।

আজ সোমবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে তিনি নগরীর উপশহর এলাকায় রাজশাহী স্যাটেলাইট টাউন হাই স্কুল কেন্দ্রে ভোট দেন।

পরে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, নির্বাচনে শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বিরাজ করছে। মানুষ নির্বিঘ্নে ভোট দিচ্ছে। আমরা এমন সৌহার্দ্যপূর্ণ পরিবেশই চেয়েছিলাম, শেষ পর্যন্ত এমন পরিবেশই থাকবে। কাউকে বিশৃঙ্খলা করতে দেয়া হবে না।

তিনি বলেন, জয়ের ব্যাপারে তিনি প্রায় শতভাগ আশাবাদী। নির্বাচনে ফল যা-ই হোক মেনে নেবো। এটা আমি আগেও বলেছি। এখনো বলছি। ফলাফল মেনে নেয়ার মানসিকতা সবাইকে রাখতে হবে।

এর আগে সকাল ৮টা থেকে ভোটগ্রহণ শুরু হয়। চলবে বিকেলে ৪টা পর্যন্ত।

রাজশাহী সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মেয়র পদে এবার লিটন ছাড়াও চার জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তারা হলেন– বিএনপির মোহাম্মদ
মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল (ধানের শীষ), বাংলাদেশ জাতীয় পার্টির হাবিবুর রহমান (কাঁঠাল), গণমঞ্চ ও গণসংহতি আন্দোলনের অ্যাডভোকেট মুরাদ মোর্শেদ (হাতি) এবং ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের শফিকুল ইসলাম (হাত পাখা)।

এছাড়া সাধারণ কাউন্সিলর পদে ১৬০ এবং সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে রয়েছেন ৫২ জন প্রার্থী।

এই নগরীর মোট ভোটার ৩ লাখ ১৮ হাজার ১৩৮ জন। এর মধ্যে এক লাখ ৫৬ হাজার ৮৫ জন পুরুষ এবং এক লাখ ৬২ হাজার ৫৩ জন নারী।

১৩৮টি ভোট কেন্দ্রের মধ্যে ১১৪টি কেন্দ্র ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। নির্বাচন উপলক্ষে নগরীতে ১৫ প্লাটুন বিজিবি সদস্য মোতায়েন রয়েছে। আরও চার প্লাটুন স্ট্যান্ডবাই রাখা হয়েছে।

জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, পুলিশের পাশাপাশি সাদা পোশাকধারী পুলিশও মোতায়েন রয়েছে। দায়িত্বপালন করছেন অন্যান্য গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যরাও।