বিএনপি-জামায়াতকে দেশ থেকে বিতারিত করতে হবে: নৌমন্ত্রী

20

দেশের শাপমোচন করতে হলে আগে বিএনপি-জামায়াত ও তাদের শরিকদের দেশ থেকে বিতারিত করতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন নৌপরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান। এসময় তিনি খুন-ধর্ষণকে পাপ উল্লেখ করে বলেন, ‘বিএনপি-জামায়াত ও তাদের শরিকরা বিগত ২০১৩, ১৪, ১৫ বছরগুলোতে এসব করেছে।’

মন্ত্রী বলেন, ‘ঘরে পাপী থাকলে লক্ষ্মী পালিয়ে যায়। এজন্য বিএনপি-জামায়াতের মতো পাপীদের দেশ থেকে বিতারিত করে দেশে শান্তি আনতে হবে।’

রবিবার (১২ আগস্ট) জাতীয় প্রেসক্লাবের কনফারেন্সে লাউঞ্জে ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন। সভার আয়োজন করে মুক্তিযোদ্ধা সন্তান সাংবাদিক ফোরাম।

নৌমন্ত্রী বলেন, ‘সরকারের মধ্যে স্বাধীনতাবিরোধীরা ঘাপটি মেরে আছে। তাদের চিহ্নিত করতে হবে। একইসঙ্গে রাজাকারদেরও তালিকা করতে হবে।’

তিনি বলেন, ‘জামাতিদের স্কুল, কলেজ, ব্যাংক, বিমা এমনকি কোনও সরকারি চাকরিতেও নেয়া যাবে না। সরকারের দায়িত্বশীল পদে স্বাধীনতাবিরোধীরা আসলে দেশের ক্ষতি হবে।’

রাজাকারদের তালিকার বিষয়ে শাজাহান খান বলেন, ‘বিশ্বের বিভিন্ন দেশ ভিয়েতনাম, কম্বোডিয়া, জাপানে স্বাধীনতা বিরোধীদের সন্তানদের চাকরি হয় না। বাংলাদেশেও তাই করতে হবে। স্বাধীনতা যুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধুর বিরুদ্ধে যারা কথা বলবে তাদেরও আইনের আওতায় আনতে হবে।’

এসময় বিকল্পধারার চেয়ারম্যান বদরুদ্দোজা চৌধুরী ও গণফোরাম সভাপতি ড. কামালের সমালোচনা করে নৌমন্ত্রী বলেন, ‘কিছু ভিত্তিহীন মানুষদের নিয়ে সরকারের সমালোচনা করা হচ্ছে। আর ড.কামালকে বঙ্গবন্ধু ১৯৭১ সালে দেশে ফিরিয়ে না আনলে জিয়াউর রহমানের সাথে তিনি সংসার করতেন কীভাবে?’

সরকারকে সরানোর জন্য অনেক ষড়যন্ত্র হচ্ছে- দাবি করে তিনি বলেন, ‘শেখ হাসিনার ভিত্তি এতো নড়বড়ে নয়। জাতির হৃদয়ে তিনি রয়েছেন।’

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি জিহাদুর রহমান জিহাদের সভাপতিত্বে এসময় আরও বক্তব্য রাখেন- জাতীয় প্রেসক্লাবের সভাপতি মুহম্মদ শফিকুর রহমান, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) সভাপতি মোল্লা জালাল ও বিএফইউজের নির্বাহী কমিটির সদস্য সেবীকা রানী প্রমুখ।