ক্ষমতায় আসলে বিএনপি প্রতিহিংসা পরায়ণ হবে নাঃ এ্যানী

50
শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী
শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী

ক্ষমতায় আসলে বিএনপি প্রতিহিংসা পরায়ণ হবে নাঃ এ্যানী

বিএনপি’র প্রচার সম্পাদকের দায়িত্বে আছেন শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী। ১৯৬৮ সালে লক্ষ্মীপুর পৌরসভার বাঞ্চানগর গ্রামে জন্ম নেয়া এ্যানি ১৯৯৩ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদলের আহবায়ক এবং ১৯৯৬ সালে ছাত্রদল কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। এছাড়া তিনি ২০০১ এবং ২০০৮ সালে পরপর দুইবার লক্ষ্মীপুর ৩ আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। সমসাময়িক রাজনীতি নিয়ে তিনি কথা বলেছেন পলিটিক্সনিউজ এর সাথে।

পলিটিক্সনিউজঃ দুঃসময়ে অঙ্গসংগঠনগুলোর কমিটি হচ্ছে। তৃণমূলের অনেকে বলছে এর কারণে দলে দ্বন্দ্ব বেড়ে যাচ্ছে। এই কমিটিগুলো আসলে এই দুঃসময়ে কেন ?

শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানীঃ আগেই কমিটিগুলো করা দরকার ছিল । সামনে আন্দোলনকে কেন্দ্র করেই আমরা এই কমিটিগুলো করছি । এই মুহূর্তে কমিটি দেওয়া একটা ভালো পদক্ষেপ । দ্বন্দ্ব থাকবে, মতভেদ থাকবে কিন্তু এর মধ্যে আবার এডজাস্ট করে নিতে হবে । এক কথায় আমি বলব এটা আন্দোলনের জন্য সহায়ক ।

পলিটিক্সনিউজঃ তৃণমূল নেতাদের তারেক রহমানের সাথে সরাসরি যোগাযোগের কোন মাধ্যম নেই। এতে দলীয় কর্মকাণ্ড বাধাগ্রস্ত হচ্ছে কিনা?

শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানীঃ তারেক রহমান পরিস্থিতির শিকার, রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাসের শিকার, হাসিনার প্রতিহিংসার শিকার। এক-এগারোর পর বিভিন্ন মামলা মোকদ্দমায় সরকার তারেক রহমানকে জড়িয়ে রেখেছে। তারপরেও আমাদের নেতা দলকে শক্তিশালী করার জন্য তৃণমূল নেতা পর্যায়ে হলেও বিভিন্ন মাধ্যমে যোগাযোগ অব্যাহত রেখেছেন ।

পলিটিক্সনিউজঃ খালেদা জিয়া এতদিন জেলে থাকতে পারেন, জেলে নেওয়ার আগে বা জেলে নেয়ার সময় আপনারা কি এটা চিন্তা করেছিলেন ?

শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানীঃ যদি দেশে আজকে সঠিক বিচার ব্যবস্থা থাকতো তাহলে খালেদা জিয়াকে জেলে রাখা যেত না । তিনি প্রতিহিংসার শিকার । মিথ্যা এবং ভুয়া মামলায় তাঁকে জেলে নেওয়া হয়েছে।

পলিটিক্সনিউজঃ বিএনপি ক্ষমতায় আসলে অনেকেই বলেন যে যারা গত ৯ বছর নির্যাতিত হয়েছে তারা আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে পাল্টা অ্যাকশন চালাবে এবং এই বিষয়কে কেন্দ্র করে দেশে অরাজকতা সৃষ্টি হবে। এই বিষয়টা কিভাবে দেখছেন?

শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানীঃ বেগম খালেদা জিয়া বলেছেন আমরা প্রতিহিংসা পরায়ণ হবোনা । বিএনপি প্রতিহিংসার রাজনীতি করে না । কিভাবে দেশ ও দশে মিলে দেশের উন্নয়ন করা যায় আমরা সেই লক্ষ্যে অটুট আছি, থাকবো । আমাদের বিএনপি চেয়ারপার্সনের লক্ষ্য হচ্ছে দেশ বাঁচাও, মানুষকে খুন করা না। আমরা দেশের স্বার্থে কাজ করে যাচ্ছি ,যাব।

পলিটিক্সনিউজঃ বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা যারা আছেন তারা অনেকেই ছাত্রদলের প্রডাক্ট না বরং ব্যবসায়ীদের প্রাধান্য দেখা যায়। কিন্তু আওয়ামী লীগে কেন্দ্রীয় নেতারা প্রায় সবাই ছাত্রলীগ করে আসা। এই বিষয়টাকে আপনি কিভাবে দেখছেন? বিএনপিতে কি ব্যবসায়ীদের অতিমূল্যায়ন হচ্ছে ?

শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানীঃ ব্যবসায়ীরা নেতৃত্ব দিচ্ছে এটা সম্পূর্ণ সঠিক নয়। স্বেচ্ছাসেবক দল বলুন ছাত্রদল বলুন যুবদল বলুন যারা তৃণমূল থেকে উঠে আসছে তারাই নেতৃত্ব দিচ্ছে এবং আগামীতেও তারা দিবে। ওয়ান-ইলেভেনের পর থেকে গুম খুন হত্যা চলছেই তারপরেও বিএনপি নেতাকর্মীরা রক্তচক্ষু উপেক্ষা করে সংগঠনের সাথে জড়িত আছে এবং কাজ করে যাচ্ছে। আপনি দেখাতে পারবেন না বিএনপির কোন জেলার কোন ইউনিটের নেতাকর্মীরা আওয়ামী লীগে যোগ দিয়েছে ।

পলিটিক্সনিউজঃ আপনার নির্বাচনী এলাকা নিয়ে আপনার বর্তমান চিন্তা ধারা এবং ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা কি?

শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানীঃ আমি আমার নির্বাচনী এলাকা লক্ষ্মীপুর- ৩ থেকে পরপর দুইবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছি। আওয়ামী লীগ গতবার জোর করে ক্ষমতায় এসেছে। আমি খুব আত্মবিশ্বাস নিয়ে বলতে পারি যদি সুষ্ঠু নির্বাচন হয় আমার এলাকাবাসী আমাকে নিরাশ করবেন না ।