আওয়ামী লীগ নেতারা কে কোথায় ঈদ করবেন

69

আওয়ামী লীগ নেতারা কে কোথায় ঈদ করবেন

ঈদকে ঘিরে জমে উঠেছে নির্বাচনী রাজনীতি। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে নির্বাচনী প্রচারণার জন্য এবার আওয়ামী লীগ নেতাদের অনেকেই নিজ-নিজ এলাকায় ঈদ উদযাপন করবেন।  যারা ঢাকায় ঈদ করবেন, তারাও ঈদের আগে ও পরে নিজ এলাকায় যাচ্ছেন।

আওয়ামী লীগের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারি বাসভবন গণভবনে ঈদ উদযাপন করবেন। ঈদের দিন বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষের সঙ্গে তিনি ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করবেন।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের তার নির্বাচনী এলাকা নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে ঈদ পালন করবেন। কোম্পানীগঞ্জ কেন্দ্রীয় ঈদগাহে নামাজ আদায় করবেন তিনি। মানুষের সাথে শুভেচ্ছা বিনিময় শেষে ঢাকার উদ্দেশে রওনা দেবেন।

আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য ও শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু ঈদ করবেন নিজ নির্বাচনী এলাকা ঝালকাঠিতে।

ঢাকায় ঈদ করবেন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামন্ডলির আরেক সদস্য মোজাফফর হোসেন পল্টু। উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য এবং আন্তর্জাতিক বিষয়ক উপ-কমিটির আহ্বায়ক এম্বাসেডর জমির ঢাকায় ঈদ করবেন।  উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য এবং সংসদীয় মনোনয়ন বোর্ডের সদস্য রাশিদুল আলম ঢাকায় ঈদের নামাজ আদায় করে কুষ্টিয়ার উদ্দেশে রওনা  দেবেন।

আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মতিয়া চৌধুরী,  শিক্ষা মন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ এবং কর্নেল (অব.) ফারুক খান ঢাকায় ঈদ করবেন ।

সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য পীযূষ কান্তি ভট্টাচার্য ঈদ করবেন যশোরের মনিরামপুরে।

যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ পবিত্র হজ করতে সৌদি আরব গেছেন। তিনি সেখানেই ঈদ করবেন। আরেক যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক ঢাকায় ঈদ করবেন। তার নির্বাচনী এলাকা মোহাম্মদপুরে তিনি ঈদের দিন নেতাকর্মীদের সঙ্গে কুশল বিনিময় করবেন।  যুগ্ম-সম্পাদক আব্দুর রহমান তার নির্বাচনী এলাকা ফরিদপুরে ঈদ করবেন।

সাংগঠনিক সম্পাদক কৃষিবিদ আ.ফ.ম. বাহাউদ্দিন নাছিম তার নির্বাচনী এলাকা মাদারীপুরের কালকিনিতে ঈদ করবেন। তিনি বলেন ‘আমরা তৃণমূলের রাজনীতি করি।  যেকোন উদযাপনে এলাকার মানুষ আমাদেরকে তাদের পাশে চায়। জনগণ চায় তাদের প্রতিনিধিও যেন একসাথে ঈদের নামাজ পড়ে,  তাদের সাথে ঈদ উদযাপন করে,  তাদের সুখ-দুঃখের তাদের পাশে থাকে। সে কারণে আমি প্রতিবারই ঈদ আমার এলাকার মানুষের সাথেই করি। আমার এলাকার মানুষের একটি দুঃখ ছিল যে আগে যারা জনপ্রতিনিধি ছিলেন তারা তাদেরকে যেকোন উদযাপনে কখনোই পেতেন না, আমি চেষ্টা করি তাদের সুখে দুখে সব সময় পাশে থাকার।’

সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন তার গ্রামের বাড়ি নেত্রকোনায় ঈদ করবেন।  সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন ঈদ করবেন জয়পুরহাট , সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেল হক শরীয়তপুরে।

তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক অ্যাডভোকেট আফজাল হোসেন ঈদ করছেন পটুয়াখালী সদরে। ঈদের সপ্তাহখানেক আগে থেকেই তিনি সেখানে অবস্থান করছেন এবং এলাকার মানুষকে সময় দিচ্ছেন।

আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার আব্দুস সবুর ঈদ করবেন কুমিল্লায় তার নির্বাচনী এলাকায়।

প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক হাছান মাহমুদ তার নিজ এলাকা রাঙ্গুনিয়ায় ঈদ করবেন।

সংস্কৃতি বিষয়ক সম্পাদক অসীম কুমার উকিল এবং তার স্ত্রী যুব মহিলা লীগের সাধারণ সম্পাদক অপু উকিল ঈদ করবেন নেত্রকোনার কেন্দুয়ায়।

আওয়ামী লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক শেখ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ ঈদ করবেন গোপালগঞ্জে। পলিটিক্সনিউজকে তিনি বলেন ‘আমি টুংগীপাড়া এবং কোটালীপাড়ায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর প্রতিনিধিত্ব করি। সামনে নির্বাচন, এলাকার মানুষকে প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে সময় দিচ্ছি।’

শিক্ষা ও মানবসম্পদ বিষয়ক সম্পাদক শামসুন্নাহার চাপা ঈদ করবেন টাঙ্গাইলের ধনবাড়ীতে,  স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক রোকেয়া সুলতানা ঈদ করবেন ঢাকায়,  অর্থ বিষয়ক সম্পাদক টিপু মুন্সি ঢাকায় ঈদ করবেন।

আওয়ামী লীগের উপ-প্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম ঈদ করবেন তার জন্মস্থান চট্টগ্রামের সাতকানিয়ায়,  উপ-দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া ঢাকায় ঈদ করবেন।

এছাড়া আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতাদের অধিকাংশই তাদের নিজ নিজ নির্বাচনী এলাকায় ঈদ করবেন বলে জানা গেছে।