খালেদার শারীরিক অবস্থা ঝুঁকিপূর্ণ নয়, বিএসএমএমইউতে ভর্তির পরামর্শ: মেডিকেল বোর্ড

17

বিএনপি চেয়ারপারসন কারাবন্দী খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা ঝুঁকিপূর্ণ নয় বলে মন্তব্য করেছেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের(বিএসএমএমইউ) পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আব্দুল্লাহ আল হারুন।

রোববার দুপুর সাড়ে ১২টায় সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন।

আব্দুল্লাহ আল হারুন বলেন, গঠিত পাঁচ সদস্যের মেডিকেল বোর্ড বেগম খালেদা জিয়াকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির পরামর্শ দিয়েছেন।

তিনি আরও বলেন, বোর্ডের চিকিৎসকরা খালেদা জিয়ার চিকিৎসার প্রতিবেদন সঠিক সময়ে আমার হাতে দিয়েছেন। প্রতিবেদনটি আজই কারা অধিদপ্তরের পাঠিয়ে দেবো।

খালেদা জিয়ার চিকিৎসায় গঠিত ৫ সদস্যের মেডিকেল বোর্ডের প্রধান মেডিসিন বিভাগের অধ্যাপক এম এ জলিল বলেন, খালেদা জিয়ার চিকিৎসায় কি কি করণীয় তা প্রতিবেদনে উল্লেখ করে তা হস্তান্তর করেছি। তার চিকিৎসায় অনেক কিছুই করণীয় আছে। কোথায় চিকিৎসা হওয়া দরকার সে বিষয়েও পরামর্শ দেয়া আছে। পাশাপাশি রোগের বর্ণনাও রয়েছে।

এর আগে বেলা পৌনে ১২টার দিকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আব্দুল্লাহ আল হারুনের হাতে এ প্রতিবেদন তুলে দেন মেডিকেল বোর্ডের প্রধান মেডিসিন বিভাগের অধ্যাপক এম এ জলিল।

এসময় বোর্ডের অন্যান্য সদস্য কার্ডিওলজি বিভাগের অধ্যাপক ডা. হারিসুল হক, অর্থোপেডিক বিভাগের অধ্যাপক ডা. আবু জাফর বিরু, চক্ষু বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. তারিক রেজা আলী ও ফিজিক্যাল মেডিসিন সহযোগী অধ্যাপক ডা. বদরুন্নেসা উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে রোববার সকালে রাজধানীর নয়াপল্টনে সংবাদ সম্মেলনে সরকার অনুগত ডাক্তার দিয়ে গঠিত মেডিকেল বোর্ড দিয়ে বেগম খালেদা জিয়ার চিকিৎসা সম্ভব নয় বলে মন্তব্য করেছেন দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন। বেগম জিয়ার চাহিদা মতো ডাক্তার দিয়ে মেডিকেল টিম গঠন করে চিকিৎসার ব্যবস্থা করার আহ্বান জানান তিনি।

এর আগে গত ৭ এপ্রিল খালেদা জিয়ার শারীরিক পরীক্ষা করতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে নেয়া হয়।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় ৫ বছরের দণ্ডপ্রাপ্ত হয়ে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া চলতি বছরের ৮ ফেব্রুয়ারি থেকে পুরাণ ঢাকার নাজিমউদ্দিন রোডের পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে একাই বন্দি হিসেবে রয়েছেন।