খালেদা জিয়ার মনোনয়নের শুনানি স্থগিত, সিদ্ধান্ত বিকেলে

    23

    ফেনী-১, বগুড়া-৬ ও ৭ আসনে বিএনপির প্রার্থী দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার আপিল শুনানি স্থগিত করেছে নির্বাচন কমিশন। আজ বিকেল পাঁচটার পর সিদ্ধান্ত জানানো হবে।

    নির্বাচন ভবনের ১১তলায় স্থাপিত এজলাসের প্রধান নির্বাচন কমিশনারের সঙ্গে শনিবার অন্য নির্বাচন কমিশনাররাও আপিলের শুনানি করেন।

    খালেদা জিয়া দুই বছরের বেশি সাজাপ্রাপ্ত হওয়ায় গত ২ ডিসেম্বর তার সবকটি মনোনয়নপত্র বাতিল করেন রিটার্নিং কর্মকর্তারা।

    জিয়া এতিমখানা ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় ১০ বছর এবং জিয়া দাতব্য ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় ৭ বছরের দণ্ড নিয়ে গত ফেব্রুয়ারি থেকে কারাগারে আছেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া।
    বিএনপি নেতারা আশা করছিলেন, রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করে তিনি ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠেয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নিতে পারবেন। সে অনুযায়ী ফেনী ও বগুড়ার তিনটি আসনে তাকে ধানের শীষের মনোনয়ন দেওয়া হয়।

    কিন্তু গত সপ্তাহে হাই কোর্টে এক মামলার রায়ের পর্যবেক্ষণে বলা হয়, সংবিধানের ৬৬ (২) (ঘ) অনুচ্ছেদ অনুযায়ী কারও দুই বছরের বেশি সাজা হলে সেই সাজার বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে আপিল বিচারাধীন থাকা অবস্থায় তিনি নির্বাচনে অংশ নিতে পারবেন না, যতক্ষণ না আপিলে ওই সাজা বাতিল বা স্থগিত হয়।
    এদিকে ইসিতে তিনদিনের আপিল শুনানি শেষ হবে আজ শনিবার। ৩১১ থেকে ৫৪৩ নম্বর আবেদনের শুনানি চলছে।

    সারা দেশ থেকে আসা ৫৪৩ আপিল আবেদনের প্রথম দিন ১৬০ জনের শুনানি হয়। এর মধ্যে ৮০ প্রার্থীকে বৈধ ঘোষণা করা হয়। দ্বিতীয় দিনে ৭৮ জন প্রার্থিতা ফিরে পান। ৬৫টি আপিল খারিজ হয়ে যায়। আর ৭টি পেন্ডিং রাখা হয়েছে।

    আগামী ৯ ডিসেম্বর প্রার্থিতা প্রত্যাহার আর প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হবে ১০ ডিসেম্বর। নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে ৩০ ডিসে