‘এক নেতা কারাগারে, অন্য নেতা পালিয়ে বেড়াচ্ছে’

22

বিএনপির নেতৃত্বের সমালোচনা করে তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ বলেছেন, দুর্নীতির মামলায় তাদের শীর্ষ এক নেতা দণ্ড নিয়ে কারাগারে, অন্য নেতা দণ্ড নিয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বামী ও পরমাণু বিজ্ঞানী ড. এম এ ওয়াজেদ মিয়ার ১০ম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় হাছান মাহমুদ এ মন্তব্য করেন।

বিএনপি আদর্শহীন দল উল্লেখ করে হাছান মাহমুদ বলেন, ‘যাদের মধ্যে কোনো চেতনা নেই, আদর্শ নেই সেই দল বেশি দিন টিকে থাকতে পারে না। বিএনপি ক্ষমতার জন্য রাজনীতি করে, দীর্ঘদিন ধরে ক্ষমতায় না থাকায় দলের নেতাকর্মীরা হতাশ হয়ে দল ছাড়তে শুরু করেছে।’

তথ্যমন্ত্রী আরও বলেন, ‘গণতন্ত্রের জন্য সবচেয়ে বড় হুমকি বিএনপি। অগণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় সৃষ্টি হওয়া দলটি সবসময় গণতন্ত্রের গলা টিপে ধরতে চেয়েছে। বিএনপির শরিকরা এখন দল ছেড়ে পালাতে শুরু করছে। ২০ দলের পর ঐক্যফ্রন্টেও ভাঙন শুরু হয়েছে। কারণ বিএনপি দুর্বৃত্তদের দল। এ কারণেই তারা এখন একটি জনবিচ্ছিন্ন ছোট দলে পরিণত হয়েছে। আমরা চাই, তারা দুর্বৃত্তের নেতৃত্ব থেকে বেরিয়ে আসুক। দেশের স্বার্থ বিবেচনা করে দুর্বৃত্তায়নের নেতৃত্ব থেকে তাদের বেরিয়ে আসতে হবে।’

হাছান মাহমুদ আরও বলেন, ‘রাজনীতিকে বণিকায়ন এবং দুর্বৃত্তায়ন করেছে বিএনপি। দলটির বর্তমান চেয়ারম্যান তারেক রহমান একজন প্রমাণিত দুর্বৃত্ত। তার নেতৃত্বে ২১ আগস্টে গ্রেনেড হামলা হয়েছে। রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে দমন করে তারা গণতন্ত্রকে হত্যা করতে চেয়েছে। তার সেই উদ্দেশ্য সফল হয়নি।’

ড. ওয়াজেদ মিয়ার স্মৃতিচারণা করে বলেন, ‘বাংলাদেশের সঙ্গে তার আত্মীয়সম সম্পর্ক ছিল। ক্রান্তিকালে এবং সংকটময় মুহূর্তে তিনি দেশের দায়িত্ব নিয়েছেন। আমাদের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে তিনি মানসিকভাবে সহায়তা করেছেন। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কখনও তাকে ভুলবে না।’

বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে সাবেক খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম, সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শামসুল হক টুকু, সাবেক সংসদ সদস্য সারাহ বেগম কবরী, অভিনেত্রী অরুণা বিশ্বাস, গায়ক এসডি রুবেলসহ আরও অনেকে উপস্থিত ছিলেন।