প্যারিস ও মালিতে সন্ত্রাসবাদী হামলার পরে শনিবার সারা দেশে সর্বোচ্চ সতর্কতা জারি করলো আতঙ্কিত বেলজিয়াম সরকার। রাজধানী ব্রাসেলসের গুরুত্বপূর্ণ জায়গাগুলি কড়া নিরাপত্তার চাদরে মুড়ে ফেলার পাশাপাশি, এদিন থেকে বন্ধ করে হয়েছে মেট্রো চলাচলও। ব্রাসেলসের বাসিন্দাদের অযথা রাস্তাঘাটে ভিড় করে না থাকতে পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। প্যারিস হামলায় জড়িত বন্দুকধারী এক সন্ত্রাসবাদী গ্রেপ্তারি এড়িয়ে বেলজিয়ামের কোথাও না কোথাও লুকিয়ে রয়েছে, এমন বদ্ধমূল ধারণা থেকেই এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। ব্রাসেলসে সন্ত্রাসবাদী হামলার ‘আসন্ন বিপদ’ সম্পর্কে প্রশাসনের কাছে রিপোর্টও এসে পৌঁছেছে বলে খবর।

প্যারিস হামলার তদন্তকারীদের বক্তব্য, সালাহ আবদেসলাম নামে এই সন্ত্রাসবাদীও গত ১৩ই নভেম্বর রাতে প্যারিসের ভয়ঙ্কর হামলায় জড়িত ছিলো। কিন্তু নিরাপত্তাকর্মীদের চোখে ধুলো দিয়ে বেলজিয়ামের এই নাগরিক পালিয়ে গেছে। ব্রাসেলসেরই কোথাও লুকিয়ে থাকতে পারে সে। তার খোঁজে দিনরাত এক করে তল্লাশি চালাচ্ছেন নিরাপত্তাকর্মীরা। প্রসঙ্গত, প্যারিস হামলার মূল চক্রী নিহত আবদেলহামিদ আবাউদও বেলজিয়ামের নাগরিক।

শনিবার এক সাংবাদিক সম্মেলনে বেলজিয়ামের প্রধানমন্ত্রী চার্লস মিশেল জানান, প্যারিসে যেভাবে একাধিক হামলা হয়েছে, ঠিক তেমন হামলার আশঙ্কার খবর পেয়েছি আমরা। মোটামুটি নিশ্চিত সূত্র থেকেই এখবর এসেছে। আমাদের আশঙ্কা, আগ্নেয়াস্ত্র ও বিস্ফোরক নিয়ে একাধিক সন্ত্রাসবাদী ব্রাসেলসের একাধিক জায়গায় হামলা চালাতে পারে। তবে এব্যাপারে বিস্তারিত জানাতে চাননি তিনি।

বেলজিয়ামের ন্যাশনাল ক্রাইসিস সেন্টারের সুপারিশ মেনে শুক্রবার ভোররাত থেকেই ব্রাসেলস এবং তার চারপাশের এলাকায় ‘লেভেল ফোর’ সতর্কতা জারি করে দেওয়া হয়। নিরাপত্তা পরিস্থিতি একমাত্র ‘অত্যন্ত গুরুতর ও বিপদ সমাসন্ন’ হলেই এদেশে সর্বোচ্চ মাত্রার এই সতর্কতা জারি করা হয়। ব্রাসেলস পরিবহণ পরিচালনা সংস্থার ওয়েবসাইটে জানানো হয়, ‘রাজধানী শহরের সমস্ত মেট্রো স্টেশন এবং ছোটখাটো রেলস্টেশনগুলি বন্ধ রাখা হয়েছে। বাস চললেও এই নির্দেশিকার কারণে বেশ কয়েকটি জায়গায় ট্রাম চলাচল ব্যাহত হবে। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ এবং পুলিশের সঙ্গে দৈনন্দিন পর্যালোচনার ভিত্তিতেই পরবর্তী সময়ে এসব পরিবহণ ফের চালু সম্পর্কে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।’

শুধু বেলজিয়ামই নয়, ১৩০জনের প্রাণ কেড়ে নেওয়া প্যারিস হামলার পরে রাতের ঘুম গিয়েছে গোটা ইউরোপেরই। ১০লক্ষের বেশি বাসিন্দার শহর ব্রাসেলসে ইউরোপীয় ইউনিয়ন এবং ন্যাটোর সদর দপ্তর। এখানেই রয়েছে বহু নামীদামি বহুজাতিক সংস্থার প্রধান কার্যালয়ও। ফলে শনিবার সকাল থেকেই সর্বত্র সশস্ত্র পুলিশ ও সেনাবাহিনীর জোরদার টহল শুরু হয়ে গেছে।

এদিকে, এদিনই সন্দেহভাজন তিন আই এস সন্ত্রাসবাদীকে পাকড়াও করেছে তুরস্ক প্রশাসন। ধৃতদের মধ্যে রয়েছে আহমেত দাহমানি নামে মরক্কো বংশোদ্ভূত বেলজিয়ান নাগরিকও। দোগান সংবাদসংস্থা এই খবর দিয়ে জানিয়েছে, ২৬বছর বয়সী দাহমানি প্যারিস হামলার জায়গাগুলি চিনিয়ে দেওয়ার কাজে সন্ত্রাসবাদীদের সাহায্য করেছিলো বলে মনে করা হচ্ছে।

 
প্রকাশক: সালেহ মোহাম্মদ রশীদ অলক
সম্পাদকঃ মাহসাব হোসাইন রনি
বার্তাকক্ষঃ ০১৭১১-৪৬০৬০১ | ই-মেইলঃ news.politicsnews24@gmail.com
 
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি