দস্যুতা ও ডাকাতি সম্পর্কিত ধারা

100
জিডি করবেন যে ভাবে
জিডি করবেন যে ভাবে

দস্যুতা ও ডাকাতি সম্পর্কিত ধারা

ধারা ৩৮৩ বলপূর্বক গ্রহণ

যে ব্যক্তি ইচ্ছাকৃতভাবে কোন ব্যক্তিকে, উক্ত ব্যক্তি বা অন্য কাহারও প্রতি ক্ষতির ভয় দেখায় এবং তদ্বারা উক্ত ভয় প্রদর্শিত ব্যক্তিকে কোন ব্যক্তির নিকট কোন সম্পত্তি বা মূল্যবান জামানত, কিংবা স্বাক্ষরিত বা সীলমোহরকৃত কোন কিছু-যাহা মূল্যবান জামানতে রূপান্তরিত হইতে পারে- হস্তান্তর করিতে প্রবৃত্ত করে, সেই ব্যক্তি ‘বলপূর্বক গ্রহণ’ করে।

ধারা ৩৯০ যেক্ষেত্রে চুরি দস্যুতা বলিয়া গণ্য হয়

সকল দস্যুতায় হয় চুরি বা বলপূর্বক গ্রহণ রহিয়াছে। যদি চুরি করিবার উদ্দেশ্যে বা চুরি করিতে, কিংবা চুরিতে লব্ধ সম্পত্তি বহন বা বহনের উদ্যোগকালে, অপরাধকারী তদুদ্দেশ্যে স্বেচ্ছাকৃতভাবে কোন ব্যক্তির মৃত্যু ঘটায় বা তাহাকে আঘাতদান করে তাহাকে অবৈধভাবেএ আটক করে বা করিবার উদ্যোগ করে, কিংবা তাহাকে তাৎক্ষণিক মৃত্যু বা তাৎক্ষণিক আঘাত বা তাৎক্ষণিক অবৈধ আটকের ভীতি প্রদর্শন করে বা করিবার উদ্যোগ করে, তাহা হইলে উক্ত চুরি হইতেছে ‘দস্যুতা’।

ধারা ৩৯১ ডাকাতি

যেক্ষেত্রে পাঁচ বা ততোধিক ব্যক্তি মিলিতভাবে কোন দস্যুতা অনুষ্ঠান করে বা করিবার উদ্যোগ করে কিংবা যেক্ষেত্রে মিলিতভাবে দস্যুতাকারী বা অনুষ্ঠান করিবার উদ্যোগকারী ব্যক্তিগণের এবং উপস্থিত ও অনুরূপ দস্যুতা অনুষ্ঠানে বা উহার উদ্যোগে সাহায্যকারী ব্যক্তিগণের মোট সংখ্যা ৫ (পাঁচ) বা ততোধিক হয়, সেইক্ষেত্রে অনুরূপ অনুষ্ঠানকারী প্রত্যেক ব্যক্তি ‘ডাকাতি’ করে বলিয়া গণ্য হইবে।

ধারা ৩৯২ দস্যুতার শাস্তি

যে ব্যক্তি দস্যুতা করে, সেই ব্যক্তি সশ্রম কারাদন্ডে- যাহার মেয়াদ দশ বছর হইতে পারে দন্ডিত হইবে, তদুপরি অর্থদন্ডেও দন্ডনীয় হইবে এবং যদি রাজপথে সূর্যাস্ত ও সূর্যোদয়ের মধ্যবর্তী সময়ে দস্যুতা অনুষ্ঠিত হইয়া থাকে, তাহা হইলে উক্ত কারাদন্ড চৌদ্দ বছর পর্যন্ত সম্প্রসারিত হইতে পারিবে।

ধারা ৩৯৪ দস্যুতা অনুষ্ঠানকালে স্বেচ্ছাকৃতভাবে আঘাত প্রদান

যদি কোন ব্যক্তি দস্যুতা অনুষ্ঠানকালে বা অনুষ্ঠানের উদ্যোগকালে স্বেচ্ছাকৃতভাবে আঘাত প্রদান করে, তাহা হইলে অনুরূপ ব্যক্তি এবং অনুরূপ দস্যুতা অনুষ্ঠান বা উহা উদ্যোগের সহিত মিলিতভাবে জড়িত অন্য যেকোন ব্যক্তি যাবজ্জীবন কারাদন্ডে বা সশ্রম কারাদন্ডে জড়িত অন্য যেকোন ব্যক্তি যাবজ্জীবন কারাদন্ডে বা সশ্রম কারাদন্ডে-যাহার মেয়াদ দশ বছর পর্যন্ত হইতে পারে-দন্ডিত হইবে এবং তদুপরি অর্থদন্ডেও দন্ডনীয় হইবে।

ধারা ৩৯৫ ডাকাতির শাস্তি

যে ব্যক্তি ডাকাতি করে, সেই ব্যক্তি যাবজ্জীবন কারাদন্ডে বা সশ্রম কারাদন্ডে যাহার মেয়াদ দশ বছর পর্যন্ত হইতে পারে-দন্ডিত হইবে, এবং তদুপরি অর্থদন্ডে দন্ডনীয় হইবে।

ধারা ৩৯৬ খুন সহকারে ডাকাতি

পাঁচ বা ততোধিক ব্যক্তি যাহারা মিলিতভাবে ডাকাতি করিতেছে, তাহাদের যেকোন একজন অনুরূপভাবে ডাকাতি করা কালে খুন করিলে উক্ত ব্যক্তিদের প্রত্যেকের মৃত্যুদন্ড বা যাবজ্জীবন কারাদন্ডে বা সশ্রম কারাদন্ডে- যাহার মেয়াদ দশ বছর পর্যন্ত হইতে পারে- দন্ডিত হইবে এবং তদুপরি অর্থদন্ডেও দন্ডনীয় হইবে।

ধারা ৪১০ চোরাই মাল

যে সম্পত্তি দখল চুরি বা বলপূর্বক গ্রহণ বা দস্যুতার ফলে হস্তান্তরিত হইয়াছে এবং যে সম্পত্তি অপরাধমূলকভাবে  আত্মসাৎ করা হইয়াছে, অথবা সে সম্পত্তি সম্পর্কে অপরাধমূলক বিশ্বাস ভঙ্গ করা হইয়াছে, উক্ত হস্তান্তর, আত্মসাৎকরণ, বা বিশ্বাসভঙ্গকরণ বাংলাদেশের ভিতরে বা বাহিরে যেখানেই অনুষ্ঠিত হউক না কেন ‘চোরাই মাল’ বলিয়া অভিহিত হইবে। কিন্তু যদি অনুরূপ মাল উত্তরকালে এমন কোন ব্যক্তির দখলে আসে সে আইনত উহা দখল করিবার অধিকারী তাহা হইলে উহা আর চোরাই মাল বলে গণ্য হইবে না।

ধারা ৪১১ অসাধুভাবে চোরাই মাল গ্রহণ করা

যে ব্যক্তি কোন মাল চোরাই বলিয়া বা উহা চোরাই মাল বলিয়া বিশ্বাস করিবার কারণ থাকা সত্ত্বেও উক্ত চোরাই মাল অসাধুভাবে গ্রহণ বা রক্ষণ করে, সেই ব্যক্তি যেকোন বর্ণনার কারাদন্ডে- যাহার মেয়াদ তিন বছর পর্যন্ত হইতে পারে বা অর্থদন্ডে বা উভয়বিধ দন্ডে দন্ডিত হইবে। তথ্যসূত্রঃঅনলাইনঢাকা