বাংলাদেশের সিটি কর্পোরেশন পরিচিতি

450

নির্বাচিত ও মনোনীত সদস্যদের নিয়ে সিটি কর্পোরেশন গঠিত হয়। সিটি কর্পোরেশনের সদস্যদেরকে মেয়র, কাউন্সিলর, প্রশাসকি প্রভৃতি বলা হয়। সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচিত প্রধানকে মেয়র বলা হয়। মেয়রকে বিভিন্ন কাজে সাহায্য করেন এলাকা-ভিত্তিক নির্বাচিত কাউন্সিলরগণ। বাংলাদেশের নির্বাচন আইন দ্বারা অযোগ্য নয় এরূপ ব্যক্তি মেয়র ও সদস্য হতে পারেন। বর্তমান আইনানুসারে সিটি কর্পোরেশনের মেয়াদ বা কার্যকাল ৫ বছর।

 

বিভাগ সিটি কর্পোরেশন
চট্টগ্রাম বিভাগ ১.     চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন (চসিক)

২.     কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশন (COCC)

ঢাকা বিভাগ ১.     ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন (DNCC)

২.     ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন (DSCC)

৩.     গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন (GCC)

৪.     নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন (NCC)

ময়মনসিংহ বিভাগ ১.     ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশন (MCC) (প্রস্তাবিত)
বরিশাল বিভাগ ১.     বরিশাল সিটি কর্পোরেশন (BCC)
খুলনা বিভাগ ১.     খুলনা সিটি কর্পোরেশন (কেসিসি)
রাজশাহী বিভাগ ১.     রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন (RCC)
রংপুর বিভাগ ১.     রংপুর সিটি কর্পোরেশন (RACC)

২.     দিনাজপুর সিটি কর্পোরেশন (DCC) (প্রস্তাবিত)

সিলেট বিভাগ ১.     সিলেট সিটি কর্পোরেশন (SCC)

 

ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন

Dhaka North City Corporation

২০১১ সালের ১৯ নভেম্বর তারিখে জাতীয় সংসদে স্থানীয় সরকার (সিটি কর্পোরেশন) (সংশোধনী) বিল, ২০১১ পাসের মাধ্যমে ঢাকা সিটি কর্পোরেশন বিলুপ্ত করা হয়। অধুনালুপ্ত ঢাকা সিটি কর্পোরেশন বিভাজিত হয়ে একাংশ ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়। ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন এর আয়তন ১৬০.৭৬ বর্গ কি.মি.। এটি বাংলাদেশের একটি নগরপ্রশাসন ও স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠান। সার্বিকভাবে ঢাকা শহরের উত্তরভাগ পরিচালনের দায়িত্বে রয়েছে এই ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন। ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন ৩৬টি ওয়ার্ডের সমন্বয়ে গঠিত।

ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন

Dhaka South City Corporation

২০১১ সালের ১৯ নভেম্বর তারিখে জাতীয় সংসদে স্থানীয় সরকার (সিটি কর্পোরেশন) (সংশোধনী) বিল, ২০১১ পাসের মাধ্যমে ঢাকা সিটি কর্পোরেশন বিলুপ্ত করা হয়। এর ফলে ঢাকা সিটি কর্পোরেশনকে বিভক্ত করে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন নামে স্বতন্ত্র দুইটি কর্পোরেশন গঠন করা হয়। ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন ৫৭টি প্রশাসনিক ওয়ার্ডে বিভক্ত। এবং প্রতিটি ওয়ার্ডে একজন কমিশনার দায়িত্বপ্রাপ্ত আছেন। মগবাজার, সবুজবাগ, মতিঝিল, মালিবাগ, ঢাকা কোতোয়ালী, সূত্রাপুর, বংশাল, ওয়ারী, রমনা, গেন্ডারিয়া, চকবাজার, লালবাগ, হাজারীবাগ, ধানমন্ডি, শাহবাগ, কাকরাইল, আজিমপুর, কদমতলী, কলাবাগান, যাত্রাবাড়ী, শ্যামপুর, মানিকনগর, নয়াটোলা, নিউমার্কেট, খিলগাঁও ও কামরাঙ্গীরচর । বর্তমানে দক্ষিণের মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন।

গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন

Gazipur City Corporation

গাজীপুর সিটি করপোরেশন ২০১৩ সালের ১৬ জানুয়ারি প্রতিষ্ঠিত হয়। ৭ জানুয়ারি প্রশাসনিক পুনর্বিন্যাস সংক্রান্ত জাতীয় কমিটির (নিকার) সভায় টঙ্গি ও গাজীপুর পৌর এলাকা নিয়ে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন গঠনের সিদ্ধান্ত অনুমোদন হয়। এর প্রেক্ষিতে গত ১৬ জানুয়ারি গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের গেজেট প্রকাশিত হয়। ১৯৭৪ সালে ৩২ দশমিক ৩৬ কিলোমিটার আয়তনের টঙ্গী পৌরসভা গঠন করা হয়। অপরদিকে গাজীপুর পৌরসভার আয়তন ৪৮ দশমিক ৫০ বর্গ কিলোমিটার। এটি ১৯৮৬ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। এই দুই পৌরসভা এবং গাজীপুর ক্যান্টনমেন্টের ১৮৮৮ দশমিক ৩৮ একর এলাকা নিয়ে গাজীপুর সিটি করপোরেশন গঠন করা হল। ২০১৩ সালে গাজীপুর সিটি করপোরেশনের প্রথম মেয়র নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এতে মেয়র হিসেবে নির্বাচিত হন বিএনপি সমর্থিত সাবেক ধর্ম প্রতিমন্ত্রী এম. এ. মান্নান। গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের আয়তন ৩২৯ দশমিক ৯০ বর্গকিলোমিটার। গাজীপুর সিটি করপোরেশনের উত্তরে গাজীপুর সদর উপজেলার মিজুপুর ইউনিয়ন, দক্ষিণে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন ও সাভার উপজেলার ইয়ারপুর ইউনিয়ন, পূর্বে গাজীপুর সদর উপজেলার বাড়িয়া ইউনিয়ন, কালীগঞ্জ উপজেলার নাগরি ইউনিয়ন ও শ্রীপুর উপজেলার প্রহল্বাদপুর ইউনিয়ন এবং পশ্চিমে কালিয়াকৈর উপজেলার মৌচাক ও মধ্যপাড়া ইউনিয়ন এবং সাভার উপজেলার শিমুলিয়া ও দামসোনা ইউনিয়ন অবস্থিত। গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের জনসংখ্যা প্রায় ২০ লাখ। ৫৭ টি ওয়ার্ড নিয়ে গাজীপুর সিটি করপোরেশন গঠিত।

নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন

Narayanganj City Corporation

১৮৭৬ সালে নারায়ণগঞ্জ শহরের সার্বিক উন্নয়ন এবং ব্যবস্থাপনা করার লক্ষ্যে নারায়ণগঞ্জ পৌরসভা প্রতিষ্ঠিত হয়। ২০১১ সালের ৫ মে নারায়নগঞ্জ পৌরসভা, সিদ্ধিরগঞ্জ পৌরসভা ও কদমরসূল পৌরসভা, এই তিনটি পৌরসভাকে বিলুপ্ত করে ২৭ টি ওয়ার্ড সমন্বয়ে গঠিত হয় নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন। এটি বাংলাদেশের সপ্তম সিটি কর্পোরেশন। এর আয়তন ৭২.৪৩ বর্গ কিঃমিঃ।

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন

Chittagong City Corporation

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মোট আয়তন ১৬০.৯৯ বর্গ কিলোমিটার। ১৯৯০ সালের ৩১ জুলাই চট্টগ্রাম মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশনের নাম পরিবর্তিত করে ‘চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন’ নামকরণ করা হয়। এ সিটি কর্পোরেশনের দক্ষিণে আনোয়ারা উপজেলা; পূর্বে পটিয়া উপজেলা, বোয়ালখালী উপজেলা ও রাউজান উপজেলা; উত্তরে হাটহাজারী উপজেলা ও সীতাকুণ্ড উপজেলা এবং পশ্চিমে সীতাকুণ্ড উপজেলা ও বঙ্গোপসাগর অবস্থিত। ১৯৯৪ সালের প্রথম নির্বাচনে এবিএম মহিউদ্দীন চৌধুরী মেয়র নির্বাচিত হন। সর্বশেষ ২০১৫ সালের সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে মেয়র নির্বাচিত হন আ জ ম নাছির উদ্দিন। ২০০১ সালের পরিসংখ্যান অনুযায়ী চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মোট জনসংখ্যা ২০,৬৮,০৮২ জন। এর মধ্যে পুরুষ ১১,৬৩,৬৭৬ জন এবং মহিলা ৯,০৪,৪০৬ জন।

কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশন

Comilla City Corporation

কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশনর আয়তন প্রায় ৫৩ দশমিক ০৪ বর্গ কিলোমিটার। এই সিটি কর্পোরেশনে ২৭টি ওয়ার্ড রয়েছে। কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশনে পাঁচ লক্ষাধিক মানুষ বসবাস করে। এই প্রতিষ্ঠানটিতে আগে কুমিল্লা পৌরসভা ও কুমিল্লা সদর দক্ষিণ পৌরসভা নামে দুটি পৌরসভা ছিল। ১০ জুলাই, ২০১১ তারিখে বাংলাদেশের স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় এক অধ্যাদেশ জারি করে প্রশাসন পৌরসভা দুটিকে একটি সিটি কর্পোরেশনের মর্যাদা দেয়।

বরিশাল সিটি কর্পোরেশন

Barisal City Corporation

১৮৬৯ সালে বরিশাল টাউন কমিটি হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয় ও ১৮৭৬ সালে বরিশাল মিউনিসিপ্যালিটিতে উন্নীত হয়। ১৯৮৫ সালে একে একটি প্রথম শ্রেনীর পৌরসভা হিসেবে ঘোষনা করা হয়। পরবর্তীতে ২০০২ সালে “বরিশাল সিটি কর্পোরেশন (সংশোধন) আইন ২০০২” এর মাধ্যমে পৌরসভা বরিশাল সিটি কর্পোরেশনে উন্নীত হয়। বর্তমানে বরিশাল সিটি কর্পোরেশন এলাকায় বসবাসকারী জনসংখ্যা প্রায় ৫ লক্ষ ও আয়তন ৫৮ বর্গ কিলোমিটার। বর্তমানে ৩০টি ওয়ার্ড নিয়ে গঠিত।বরিশাল সিটি কর্পোরেশন ৩টি থানা, ৩০টি ওয়ার্ড ও ২২৫ টি মহল্লা রয়েছে। বরিশাল সিটি করপোরেশন অধিভুক্ত নগর এলাকার আয়তন ৫৮ বর্গ কিমি। । এর উত্তরে কাউনিয়া ও এয়ারপোর্ট থানা, দক্ষিণে বন্দর থানা এবং নলছিটি ও বাকেরগঞ্জ উপজেলা, পূর্বে কাউনিয়া ও বন্দর থানা, পশ্চিমে এয়ারপোর্ট ও কোতোয়ালী থানা এবং নলছিটি উপজেলা।

খুলনা সিটি কর্পোরেশন

Khulna City Corporation

১৯৯০ সালে প্রতিষ্ঠিত বাংলাদেশের অন্যতম প্রধান বিভাগীয় সিটি কর্পোরেশন। ১৯৮৪ সালে এটি মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশন হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়। খুলনা সিটি কর্পোরেশনের আয়তন ৪৫.৬৫ বর্গ কিলোমিটার। খুলনা সিটি কর্পোরেশনর জনসংখ্যা পনেরো লক্ষ। খুলনা সিটি কর্পোরেশনের বর্তমান মেয়র মোঃ মনিরুজ্জামান। তিনি বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের নেতা। খুলনা সিটি কর্পোরেশন স্থানীয় সরকার আইন দ্বারা পরিচালিত হয়।এটি এলজিআরডি মন্ত্রণালয়ের অধীন প্রতিষ্ঠান।

রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন

Rajshahi_City_Corporation

রাজশাহী সিটি কর্পোরেশরে আয়তন: ৯৫.৫৬ বর্গ কিমি। এর জনসংখ্যা ৩৮৮৮১১; পুরুষ ২০৮৫২৫, মহিলা ১৮০২৮৬। রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন, ১৮৭৬ সালে প্রতিষ্ঠিত, বাংলাদেশের প্রধান বিভাগীয় সিটি করপোরেশন। সিটি করপোরেশন হিসাবে প্রতিষ্ঠার আগে এটি একটি পৌর কর্পোরেশন ছিল। সিটিকর্পোরেশন ঘোষণা করা হয় ১৯৯১ সালে।

রংপুর সিটি কর্পোরেশন

Rangpur City Corporation

২০১২ খ্রিস্টাব্দের ২০ ডিসেম্বর তারিখে জাতীয় সংসদে স্থানীয় সরকার (সিটি কর্পোরেশন) বিল, ২০০৯-এর মাধ্যমে রংপুর পৌরসভাকে আনুষ্ঠানিকভাবে রংপুর সিটি কর্পোরেশনে উন্নীত করা হয়। সিটি করপোরেশনের আয়তন এখন ২০৩.৬৩ বর্গকিলোমিটার। এই আয়তনের মধ্যে রংপুর সদরের ১০টি, কাউনিয়া সারাই ও পীরগাছার কল্যাণীসহ ১২টি ইউনিয়ন মিলে ১১২টি মৌজাকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়। এর মধ্যে ৭টি ইউনিয়ন পূর্ণাঙ্গ ও ৫টি আংশিক রয়েছে। তবে ক্যান্টনমেন্টকে সিটি করপোরেশনের আওতার বাইরে।

সিলেট সিটি কর্পোরেশন

Sylhet City Corporation

২০০১ খ্রিস্টাব্দে প্রতিষ্ঠিত সিলেট নগরীর নগর কার্যালয়। এই সিটি কর্পোরেশন, “সিলেট সিটি কর্পোরেশন আইন, ২০০১” অনুযায়ী প্রতিষ্ঠিত হয় অথবা বলা যায় সিটি কর্পোরেশন স্থাপনকল্পে উক্ত আইন প্রণীত হয়। এই সিটি কর্পোরেশন এলাকা গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের সংবিধানের ৫৯ অনুচ্ছেদের উদ্দেশ্য পূরণার্থে একটি স্থানীয় প্রশাসনিক ইউনিট হিসেবে প্রতিষ্ঠিত৷ পরবর্তিকালে এই আইন ২০০২ সংশোধিত হয়ে হয় “সিলেট সিটি কর্পোরেশন (সংশোধন) আইন ২০০২”।