আন্দোলন স্থগিত, প্রধানমন্ত্রীকে মাদার অব এডুকেশন উপাধি

29

আন্দোলন স্থগিত, প্রধানমন্ত্রীকে মাদার অব এডুকেশন উপাধি

কোটা সংস্কারের দাবিতে চলমান আন্দোলন স্থগিত ঘোষণা করা হয়েছে। এসময় আন্দোলকারী ছাত্ররা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে মাদার অব এডুকেশন উপাধি হিসেবে ভূষিত করেন। বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় রাজু ভাস্কর্যের সামনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকর সংরক্ষণ পরিষদের আহ্বায়ক হাসান আল মামুন এ ঘোষণা দেন। তিনি জানান, প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা প্রজ্ঞাপন আকারে জারি না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন স্থগিত করা হয়েছে। এ সময় তিনি প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা দ্রুত গেজেট আকারে প্রকাশের দাবি জানান।

সংবাদ সম্মেলনে তারা ৬ দফা দাবি পেশ করেন তিনি।

দাবিগুলো হল- ১. প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণার গেজেট প্রকাশ করে অতিদ্রুত বাস্তবায়ন করতে হবে। ২. গ্রেফতারকৃত আন্দোলকারী সকল শিক্ষার্থীদের নিঃশর্ত মুক্তি দিতে হবে। ৩. আন্দোলনে পুলিশি নির্যাতনে আহত সকল শিক্ষার্থীদের সু-চিকিৎসার ব্যয়ভার বহন করতে হবে। ৪. পুলিশ ও ঢাবি প্রশাসন অন্যায়ভাবে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের উপর যে ৫টি অজ্ঞাতনামা মামলা দিয়েছে তা প্রত্যাহার করতে হবে। ৫. আন্দোলনে অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থীদের ও নেতৃবৃন্দকে পরবর্তীতে কোনো রকম হয়রানি করা হলে শিক্ষার্থীদের সাথে নিয়ে আবার আন্দোলন করা হবে এবং ৬. যৌক্তিক দাবিতে সহমত পোষণ করা সকল শিক্ষক, সাংবাদিক ও বুদ্ধিজীবীদের ধন্যবাদ জানানো হয়।

উল্লেখ্য, কোটা সংস্কার দাবিতে রোববার দুপুরে পূর্বঘোঘিত গণপদযাত্রা শেষে শাহবাগ মোড় অবরোধ করেন শিক্ষার্থীরা। পরে রাত ৮টার দিকে তাদের ওপর পুলিশ চড়াও হলে সংঘর্ষ শুরু হয়। সোমবার সকাল পর্যন্ত পুলিশ ও ছাত্রলীগের সঙ্গে দুই শতাধিক শিক্ষার্থী ও চাকরিপ্রার্থী আহত হন। এছাড়া শতাধিক আন্দোলনকারীকে আটক করা হয়। মঙ্গলবার তাদের মুক্তি দেয়া হয়।

সোমবার বিকালে সরকারি প্রতিনিধি দলের সঙ্গে বৈঠকে চাকরিতে বর্তমান কোটা পদ্ধতি ‘পরীক্ষা-নিরীক্ষায়’ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আশ্বাসে আন্দোলন ৭ মে পর্যন্ত স্থগিত রাখার ঘোষণা দেন আন্দোলনের নেতৃত্ব দিয়ে আসা কমিটি।কিন্তু ‘পরীক্ষা-নিরীক্ষায় সরকারের অস্পষ্ট আশ্বাসে’ আন্দোলন স্থগিতের সিদ্ধান্ত প্রত্যাখ্যান করেন শিক্ষার্থী ও চাকরিপ্রার্থীদের একাংশ। তারা কর্মসূচি অব্যাহত রাখার ঘোষণা দেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সংসদে এক প্রশ্নের জবাবে কোটা প্রথা বাতিলের ঘোষণা দিলে আন্দোলন স্থগিত করেন শিক্ষার্থীরা। তখনই তারা জানান, বৃহস্পতিবার সংবাদ সম্মেলন করে এ ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানানো হবে।