তারিখ : ১৩/০১/২০১৮ সংবাদ বিজ্ঞপ্তি
সমাজশক্তিসমূহের অংশীদারিত্বে শাসনব্যবস্থা ও রাষ্ট্রীয় কাঠামো চাই সমাজশক্তিসমূহের অংশীদারিত্বে শাসনব্যবস্থা ও রাষ্ট্রীয় কাঠামো গঠনের অঙ্গীকার নিয়ে সামাজিক শক্তির ৯ম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। ১৩ জানুয়ারি ২০১৮, শনিবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে অনুষ্ঠিত হয় এ আলোচনা সভা। সংগঠনের যুগ্ম আহ্বায়ক এম ডি হাবিবুল্লাহর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন সংগঠনের সদস্য সচিব মোশারেফ হোসেন মন্টু। সভায় আলোচনা করেন স্বাধীনতার প্রথম পতাকা উত্তোলক ও জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল জেএসডি সভাপতি আ স ম আবদুর রব, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, জেএসডি সাধারণ সম্পাদক আবদুল মালেক রতন, সাবেক সংসদ সদস্য অধ্যাপক হুমায়ুন কবীর হীরু, মুক্ত রাজনৈতিক আন্দোলনের সভাপতি স্বরূপ হাসান শাহীন প্রমুখ। সংগঠনের সদস্য সচিব মোশারেফ হোসেন মন্টু মূল প্রবন্ধে বলেন, একটি সদ্য স্বাধীন দেশের প্রথম ও প্রধান কাজ পরাধীন আমলের আইন-কানুন, রাষ্ট্রীয় কাঠামো ও শাসনব্যবস্থার পরিবর্তন সাধন করা। স্বাধীনতার ৪৭ বছর পরও আমরা কিছুদিন পরপর কখনো নির্বাচিত/অনির্বাচিত রাজনৈতিক দল বা ব্যক্তিকে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় দেখছি। তাদের ভূমিকা দেখি অনেকটা পরাধীন আমলের ব্রিটিশ সরকারের প্রতিনিধি সর্বময় একক ক্ষমতার অধিকারী বড়লাট বা ছোটলাট সাহেবদের মতো। মূল প্রবন্ধে বলা হয়, রাষ্ট্রীয় ক্ষমতার ভারসাম্য ও জাতীয় ঐক্য রক্ষায় দ্রুত ও সুষম উন্নয়নের জন্য বাংলাদেশে অবিলম্বে ৯টি প্রদশ গঠন করতে হবে। বর্তমানে বাংলাদেশের রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় আসীন রাজনৈতিক দলগুলো জোটগত বা এককভাবে দেশ পরিচালনায় বারবার ব্যর্থ হয়েছে। এই মুহুর্তে রাজনৈতিক দলের বাইরে থাকা অভিজ্ঞ শ্রম-কর্ম-পেশার জনগণের প্রতিনিধি ও সংগঠনের প্রতিনিধি যেমন শিক্ষক, সাংবাদিক, আইনজীবী, মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতিনিধি, সাবেক আমলা (বিভিন্ন বিষয়ে অভিজ্ঞ সরকারি ও বেসরকারি), ব্যবসায়ী, কৃষক, শ্রমিক, নারী, ক্ষুদ্র জাতিসত্তা, প্রবাসী নাগরিক, বিভিন্ন ধর্মের (আনুপাতিকহারে) প্রতিনিধি নিয়ে জাতীয় সংসদে অবিলম্বে ‘উচ্চকক্ষ’ গঠন করে ‘দুইকক্ষ’ বিশিষ্ট ‘জাতীয় সংসদ’ (পার্লামেন্ট) গঠন করতে হবে। উপনিবেশিক আমলের আইন-কানুন-বিধি বদলিয়ে ‘দুইকক্ষ’ বিশিষ্ট জাতীয় সংসদ, ফেডারেল পদ্ধতির কেন্দ্রীয় সরকার, প্রদেশ গঠন, উপজেলা ভিত্তিক শিল্পায়ন ও স্ব-শাসিত স্থানীয় সরকার ব্যবস্থা এবং উপ-আঞ্চলিক অর্থনৈতিক জোট গঠন করা এখন জরুরি। আলোচনা অংশ নিয়ে স্বাধীনতার প্রথম পতাকা উত্তোলক ও জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল জেএসডি সভাপতি আ স ম আবদুর বর বলেন, ‘আমরা মুক্তিযুদ্ধ করেছি, পরাধীন-বিদেশী শাসন-প্রশাসন পরিবর্তন করার জন্য। সমস্ত হুবহু এই দেশে বহাল আছে। ব্রিটিশ শাসন, পাকিস্তানী শাসন, ইংরেজি শাসন সব বজায় আছে। ঘুষ, দুর্নীতি, চোরাকারবারী, লুটপাট সব বজায় আছে। তাহলে এত লোকের রক্ত দিয়ে দেশ স্বাধীন হলো কীভাবে? ’ তিনি বলেন, রাজনৈতিক দলগুলো যা ধারণ করতে পারে না, সে কথা কে বলবে? এ জন্য রাজনৈতিক দলগুলোর পাশাপাশি সামাজিক, পেশাজীবী, কর্মজীবী, শ্রমজীবী সংগঠন দরকার। যে রাজনৈতিক দল মানুষকে উন্নত জীবন দিতে পারে না, সে রাজনৈতিক দল মানুষের জন্য বোঝা। অগ্রগামি চিন্তার জন্য রাজনীতি। রাজনৈতিক দলগুলো যদি পেছনের দিকে চিন্তা করা তাহলে সে রাজনৈতিক দলের দরকার নেই। রাজনীতি মানুষকে উন্নত জীবন উপহার দেওয়ার জন্য। গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, এত উন্নয়ন যে প্রতিনিয়ত মানুষ গুম হচ্ছে। এটা উন্নয়ন, না অপশাসন এটা আমাদের আগে ভাবতে হবে। যাদের অপরাধের বিচার হয়, তাদের মৃত্যুদ-। কিন্তু যারা গুম হয়, তাদের বিচারের অধিকারও নেই। দুর্ভাগ্য আমাদের বিচারকরা কিছুই শিখছেন না। আমাদের বিচারপতিরা আজকেও পাঁচ মাস ছুটি কাটান, যখন ৩ লাখ মামলা ঝুলে থাকে।
বার্তা প্রেরক মোশারেফ হোসেন মন্টু সদস্য সচিব, কেন্দ্রীয় কমিটি সামাজিক শক্তি ০১৮৭৩৭৫১২১০

 
প্রকাশক: সালেহ মোহাম্মদ রশীদ অলক
সম্পাদকঃ মাহসাব হোসাইন রনি
বার্তাকক্ষঃ ০১৭১১-৪৬০৬০১ | ই-মেইলঃ news.politicsnews24@gmail.com
 
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি