সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশের মহা হিসাব নিরীক্ষক ও নিয়ন্ত্রকের কার্যালয় (সিএজি) এর রাজস্ব ও স্থানীয় অধিদপ্তরের যে নিরীক্ষক সম্প্রতি ইউরো কোলা প্রস্তুতকারক গ্লোব সফট ড্রিংকস্ কোম্পানীর নিকট পাঁচ লক্ষ টাকা ঘুষ দাবি করেন তার সহযোগীসহ সংশ্লিষ্ট সকল অপরাধীদের যথাযথ প্রক্রিয়ায় দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিতের আহ্বান জানিয়েছে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)।

নির্ভরযোগ্য সূত্র অনুযায়ী নিরীক্ষা কার্যক্রমে সিএজি কার্যালয়ের নিরীক্ষকদের একটি দল সম্প্রতি রাজধানীর তেজগাঁওয়ে অবস্থিত গ্লোব সফট ড্রিংকস্ এর একটি কারখানায় নগদ প্রণোদনা বিষয়ে পরিদর্শনে গেলে রাজস্ব ও স্থানীয় অধিদপ্তরের উক্ত নিরীক্ষক কোম্পানী কর্তৃপক্ষের নিকট পাঁচ লক্ষ টাকা ঘুষ দাবি করে। শুধু তাই নয়, পরবর্তীতে এ বিষয়ে অভিযোগের প্রেক্ষিতে সিএজি কর্তৃক গঠিত অভ্যন্তরীন তদন্ত দল কাজ করতে গেলে উক্ত নিরীক্ষক ও তার সহযোগী কুচক্রীমহল কর্তৃক নানা প্রকার বাধা ও চাপের সম্মুখীন হয়।

এ ঘটনায় গভীর ক্ষোভ ও উদ্বেগ প্রকাশ করে আজ এক সংবাদ বিবৃতিতে টিআইবি উক্ত নিরীক্ষক ও তার সহযোগীদের চিহ্নিত করে যথাযথ প্রক্রিয়ায় জবাবদিহিতা ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করার জন্য মহা হিসাব নিরীক্ষক ও নিয়ন্ত্রকের প্রতি আহ্বান জানায়। টিআইবি’র নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেন,“সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠান মহা হিসাব নিরীক্ষক ও নিয়ন্ত্রকের কার্যালয় কারো প্রতি ভয় বা ভীতি বা করুণার উর্ব্ধে থেকে এ ধরনের দুর্নীতি নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থ হলে তা হবে জাতির জন্য এক অশনিসংকেত। যে কার্যালয়ের ওপর জনগণের অর্থে পরিচালিত সকল খাত ও প্রতিষ্ঠানের নিরীক্ষার মাধ্যমে দুর্নীতি নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধে কার্যকর ভূমিকা পালনের দায়িত্ব, সেই প্রতিষ্ঠানের অভ্যন্তরেই যদি এ ধরনের ন্যাক্কারজনক দুর্নীতি বিরাজ করে, ও আবার তা সুরক্ষার জন্য চাপ প্রয়োগের মতো মহল আধিপত্য বিস্তার করতে চায় তাহলে তা হবে অত্যন্ত কলঙ্কজনক ও চরম হতাশাব্যঞ্জক।”

বিবৃতিতে আরো বলা হয়, “একদিকে নিরীক্ষার নামে ঘুষ দাবি ও অন্যদিকে তদন্ত কাজে বাধা সৃষ্টি করে সিএজি কার্যালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দের একাংশ শুধু তাদের নিজেদের দায়িত্ব পালনে ব্যর্থ হচ্ছেন না, একইসাথে সাংবিধানিক এই প্রতিষ্ঠানের মর্যাদা পদদলিত করার দুঃসাহস দেখাচ্ছেন। মহা হিসাব নিরীক্ষক ও নিয়ন্ত্রক মহোদয় কোন অবস্থায়ই তা হতে দিবেন না, টিআইবি এই আশা করছে।”

প্রয়োজনে তিনি আইন প্রয়োগকারী সংস্থাসহ সরকারের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ ও দুর্নীতি দমন কমিশনের সহযোগিতা চাইতে পারেন বলে মনে করছে টিআইবি। এ প্রেক্ষিতে মহা হিসাব নিরীক্ষক ও নিয়ন্ত্রকের কার্যালয়ের সম্ভাব্য অবক্ষয় প্রতিরোধে ও কার্যকর প্রাতিষ্ঠানিক সুশাসন প্রতিষ্ঠায় বিশেষ বহুমূখী শুদ্ধাচার কার্যক্রম প্রয়োজন বলে মন্তব্য করেন টিআইবি’র নির্বাহী পরিচালক।

 
প্রকাশক: সালেহ মোহাম্মদ রশীদ অলক
সম্পাদকঃ মাহসাব হোসাইন রনি
বার্তাকক্ষঃ ০১৭১১-৪৬০৬০১ | ই-মেইলঃ news.politicsnews24@gmail.com
 
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি