ঢাকায় সমাবেশের অনুমতি না পেয়ে বিক্ষোভের ডাক বিএনপির

26

ঢাকায় সমাবেশের অনুমতি পেয়ে বিক্ষোভের ডাক বিএনপিরবিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও সুচিকিৎসার দাবিতে ঢাকায় সমাবেশের অনুমতি না দেয়ায় নতুন কর্মসূচি ঘোষণা করেছে বিএনপি। ঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী আগামী বুধবার ঢাকার মহানগরের থানায় থানায় বিক্ষোভ করবে দলটি।

সোমবার সকালে নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এই কর্মসূচি ঘোষণা করেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি ও সুচিকিৎসার দাবিতে আমরা আজ ঢাকা মহানগরসহ দেশব্যাপী সমাবেশ অনুষ্ঠানের শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি ঘোষণা করেছিলাম। অনেক প্রতীক্ষার পর গতরাতে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনারের পক্ষ থেকে আমাদেরকে সাফ জানিয়ে দেয়া হয় সমাবেশ করতে দেয়া হবে না।’

রিজভী বলেন, ‘বেগম খালেদা জিয়া বর্তমান ভোটারবিহীন সরকার প্রধান শেখ হাসিনার প্রতিহিংসার শিকার বলেই জাল-জালিয়াতির মাধ্যমে দায়ের করা মামলায় অন্যায় সাজা দিয়ে বন্দী করে রাখা হয়েছে। তিনি বর্তমানে নানাবিধ জটিল রোগে ভুগলেও তার সুচিকিৎসার জন্য বিএনপির দাবিকে আমলে না নিয়ে বরং উপহাস ও তাচ্ছিল্য করে আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক নিষ্ঠুর রসিকতা করছেন।’

‘গণতন্ত্রের শত্রুপক্ষ শেখ হাসিনা ও তার সরকার জনমতকে উপেক্ষা করে দেশের জনপ্রিয় নেত্রী দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে রোগে-শোকে কষ্ট দিয়ে আনন্দ লাভ করছেন। কারণ আওয়ামী সরকারের জনগণ লাগবে না, তারা গুণ্ডামি দিয়েই সবকিছু জিততে চায়।’

রিজভী বলেন, ‘জালিম সরকার এখন জনআতঙ্কে ভুগছে বলেই বিএনপির যেকোনো কর্মসূচির অনুমতি দিচ্ছে না। কোনো কোনো ক্ষেত্রে কদাচিৎ অনুমতি দেয়া হলেও পুলিশ রাতভর দলের নেতাকর্মীদের বাড়িতে বাড়িতে গ্রেপ্তার, হুমকি, পরিবারের লোকজনদের সঙ্গে খারাপ ব্যবহার এবং অনুষ্ঠানের সময় পুলিশ নির্বিচারে লাঠিচার্জ, গরম পানি, টিয়ার শেল নিক্ষেপসহ বিভিন্নভাবে হামলা চালিয়ে অনুষ্ঠান পণ্ড করে দেয়।’

রিজভীর দাবি আওয়ামী লীগ অন্ধকারের দল। সভ্যতার উল্টো পথে হাঁটার দল।