রবিবার, জানুয়ারি ২০, ২০১৯
Home Blog Page 109

মাহমুদুর রহমানের ওপর হামলা একটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা: কাদের

কুষ্টিয়ায় আদালত চত্বরে ‘দৈনিক আমার দেশ’ পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মাহমুদুর রহমানের ওপর হামলা একটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা বলে মন্তব্য করলেন সড়ক, পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

সোমবার দুপুরে রাজধানীর ঢাকা ক্লাবের স্যামসন এইচ চৌধুরী মিলনায়তনে ‘জ্যাম’ নামের একটি চলচ্চিত্রের মহরত অনুষ্ঠানে যোগদান শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এই মন্তব্য করেন তিনি।

ওবায়দুল কাদের বলেন, কুষ্টিয়ার ঘটনা এক‌টি বিচ্ছিন্ন ঘটনা। এই ধর‌নের ঘটনা মা‌ঝে-মধ্যে ঘ‌টে। তবে ভবিষ্যতে যেন এ ধরনের ঘটনা না ঘটে, তার জন্য আমরা যেমন সতর্ক থাকব, পুলিশকেও বলব সতর্ক থাকতে। এই ঘটনায় জড়িতদের খুঁজে বের করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

তিনি বলেন, ভিন্নমত থাকতেই পারে। বিভিন্ন সংবাদপত্র আছে, টেলিভিশনে টক শো আছে- এসব জায়গায় যে যেমন চাইছেন, তেমন বলছেন। এর জন্য কারও ওপর শারীরিকভাবে হামলা করার রাজনীতি আওয়ামী লীগ অতীতে করেনি, আগামীতেও করবে না।

সেতুমন্ত্রী বলেন, কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্তে এমন ঘটনা ঘটেনি। কুষ্টিয়ার ঘটনায় যারাই জড়িত থাকুক না কেন, তাদের খুঁজে বের করার জন্য পুলিশের আইজি’র সঙ্গে কথা বলেছি, প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে বলেছি।

উল্লেখ্য, গত রোববার মানহানি মামলায় জামিন নিতে গিয়ে কুষ্টিয়া জেলা আদালত প্রাঙ্গণে হামলার শিকার হন মাহমুদুর রহমান।

 

সিইসির সঙ্গে বৈঠকে বিএনপি

বিএনপির চার সদস্যের একটি প্রতিনিধিদল প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নুরুল হুদার সঙ্গে বৈঠকে বসেছে।বিএনপির চেয়ারপারসনের মিডিয়া উইংয়ের সদস্য শায়রুল কবির খান আরটিভি অনলাইনকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, আজ সোমবার বিকেল সাড়ে তিনটার দিকে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আবদুল মঈন খানের নেতৃত্বে প্রতিনিধি দলটি প্রধান নির্বাচন কমিশনারের সভাকক্ষে বৈঠকে বসেছে।

তিনি বলেন, তিন সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থীদের নির্বাচনী প্রচারে আচরণবিধি লঙ্ঘন এবং কোনও ধরনের গ্রেপ্তারি পরোয়ানা ছাড়াই বিএনপির নেতাকর্মীদের পুলিশ গ্রেপ্তার করছে। বাড়ি বাড়ি গিয়ে হয়রানি করছে। এতে করে নির্বাচনী পরিবেশ নষ্ট হচ্ছে।

প্রতিনিধিদলের সদস্যরা হলেন- বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আবদুল মঈন খান, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান চৌধুরী কামাল ইবনে ইউসুফ, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আমান উল্লাহ আমান ও সাংগঠনিক সম্পাদক (ময়মনসিংহ বিভাগ) ইমরান সালেহ প্রিন্স।

বৈঠকে সিইসি কে এম নুরুল হুদা, নির্বাচন কমিশনার কবিতা খানম ও ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) শাহাদত হোসেন ও ইসির অতিরিক্ত সচিব মো. মোখলেসুর রহমান উপস্থিত আছেন।

মির্জা ফখরুলকে ‘রাজনীতির কাক’ বললেন হাছান

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের রাজনৈতিক ‘দ্বিচারী নীতির’ সমালোচনা করে আওয়ামী লী‌গের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদ ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, ‘মির্জা ফখরুল সাহেব আপনি তো বড় বড় কথা বলেন। কিন্তু মনে রাখবেন, আপনিও (ফখরুল) রাজনীতির কাক। কারণ আপনি করতেন বামপন্থি দল। সেখান থেকে ডানপন্থি বিএনপিতে চলে গেলেন। অর্থাৎ আপনি আপনার নীতি বাদ দিয়ে ক্ষমতার উচ্ছিষ্টের লোভে বিএনপিতে গেছেন। আরও অনেকের নাম বলতে পারি, এরা রাজনৈতিক কাক। এই রাজনৈতিক কাকের সমন্বয়ের দল হচ্ছে বিএনপি। আজকে এই দল নানা কথা বলে।’

তিনি বলেন, ‘রাস্তায় যেমন খাবারের উচ্ছিষ্ট ছিটিয়ে দিলে অনেক কাক এসে জড়ো হয়, তেমনি জিয়াউর রহমান একইভাবে ক্ষমতার উচ্ছিষ্ট বিলিয়ে দিয়ে রাজনীতির কাক জড়ো করেছিলেন। তাদেরই একজন মির্জা ফখরুল।’

সোমবার (২৩ জুলাই) জাতীয় প্রেসক্লা‌বের কনফা‌রেন্স লাউঞ্জে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃ‌তিক জো‌টের উদ্যো‌গে দে‌শের প্রথম প্রধানমন্ত্রী তাজউদ্দিন আহ‌মেদের ৯৩তম জন্ম‌কা‌র্ষিকী উপল‌ক্ষে আলোচনা সভায় তি‌নি এসব কথা ব‌লেন।

আমার দেশ পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মাহমুদুর রহমা‌নে ওপর ছাত্রলীগ নয়, দুষ্কৃতিকারীরা হামলা চালিয়েছে বলে দাবি করে ড. হাছান মাহমুদ ব‌লে‌ন, ‘ছাত্রলীগের ওপর এ হামলার দায় চাপানোর চেষ্টা করা হচ্ছে। এখন অবস্থা এরকম কোনও গাড়ি যদি এক্সিডেন্ট হয় সেটার কারণেও ছাত্রলীগের ঘাড়ে দায় দেয়া হচ্ছে। সবকিছুই যেন ছাত্রলীগের জন্য।’

হাছান মাহমুদ ব‌লেন, ‘মাহমুদুর রহমানের ওপর হামলা আজকের পত্রিকার বড় খবর। এই হামলাকে আমি অবশ্যই সমর্থন করি না। কিন্তু মাহমুদুর রহমান, উনি কে? কাবা শরীফের ছবি বিকৃত করে ধর্মপ্রাণ মুসল্লিদের অনুভূতিতে আঘাত আনার জন্য সাঈদীর ছবি সহ আরও অনেকের ছবি জুড়ে দিয়েছিল। তিনি বঙ্গবন্ধু, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং তাঁর পরিবারকে নিয়ে যেই অকথ্য, অশালীন ভাষায় কথা বলেছেন তিনি আবার একটি পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক।’

সাবেক এই মন্ত্রী ব‌লেন, ‘বিএনপি কোনও ইস্যু পায় না। কোটা আন্দোলন নিয়েছিল, কোটা আন্দোলন এখন আর হালে পানি পাচ্ছে না। এখন মাহমুদুর রহমানকে নিয়ে নেমেছে। আজকে দেখলাম ফখরুল সাহেব প্রেসক্লাবে এসেছেন। তিনি কি বলেছেন জানি না। তবে কয়েকটা দিন এই ইস্যুতেই তারা সভা সমাবেশ গরম করবেন। আমি আপনাদের অনুরোধ জানাবো এই সমস্ত ব্যক্তিবর্গের হাত থেকে বিএনপিকে রক্ষা করুন।’

তি‌নি ব‌লেন, ‘বাংলাদেশে দুই ধরনের বিএনপি নেতা আছে। বিএনপি বাই চান্স আর বিএনপি বাই এক্সিডেন্ট। বিএনপি বাই চ্যান্স মানে তারা কোনো না কোনো ঘটনার কারণে বিএনপি হয়ে গেছেন। বাই এক্সিডেন্ট হ‌লো অনেকেই আওয়ামী লীগের নমিনেশন চেয়েছিল, পায় নাই। তাই বিএনপিতে চলে গেছে।’

তিনি বলেন, ‘এখন পত্রিকার সম্পাদকও এরকম দেখা গেছে সম্পাদক বাই চ্যান্স অথবা সম্পাদক বাই এক্সিডেন্ট। সুপ্রিম কোর্টে আপিল বিভাগের প্রধান বিচারপতি এই মাহমুদুর রহমান সম্পর্কে বলেছেন, এডিটর বাই চ্যান্স। সুতরাং এরা হচ্ছে মুখোশধারী দুষ্কৃতিকারী। মাহমুদুর রহমান সাহেবরা হচ্ছেন সুবেশধারী দুষ্কৃতিকারী।’

বিএন‌পিকে উদ্দেশ্য ক‌রে এই নেতা ব‌লেন, ‘আপনারা নির্বাচনে যাবেন এতদিন বলেছিলেন। এখন আবার বলছেন খালেদা জিয়াকে ছাড়া নির্বাচনে যাবেন না। গতবার নির্বাচনে না যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়ে ফাঁসির দড়ি ঝুলিয়েছেন। আর এবার নির্বাচনে না গেলে ফাঁসি হয়ে যাবে। ফাঁসি থেকে কেউ রক্ষা করতে পারবে না। সুতরাং আমি অনুরোধ জানাবো আপনারা সিদ্ধান্ত নেন, খালেদা জিয়া বড় না বিএনপি বড়। তারেক রহমানের মতো দুষ্কৃতিকারী বড় না বিএনপি বড়। আমি আশা করবো আপনারা বিএনপিকে রক্ষা করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবেন।’

আ‌য়োজক ক‌মি‌টির উপ‌দেষ্টা চিত্তরঞ্জন দা‌সের সভাপ‌তি‌ত্বে সভায় আরও উপ‌স্থিত ছি‌লেন বিচারপ‌তি শামসু‌দ্দিন চৌধুরী মা‌নিক ও আওয়ামী লী‌গের উপ‌দেষ্টামণ্ডলীর সদস্য মুকুল বোষ প্রমুখ।

মাহমুদুর রহমানের ওপর হামলা সমর্থন করি না: কাদের

কুষ্টিয়ার আদালত প্রাঙ্গণে ‘আমার দেশ’ পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মাহমুদুর রহমানের ওপর হামলাকে ‘বিচ্ছিন্ন ঘটনা’ উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘এ ধরনের ঘটনা অনাকাঙ্ক্ষিত, অনভিপ্রেত। রাজনীতি ও সাংবাদিকতায় যে কারো ভিন্নমত থাকতে পারে। আমরা এ ধরনের হামলার সমর্থন করি না।’

সোমবার (২৩ জুলাই) দুপুরে রাজধানীর ঢাকা ক্লাবে ‘জ্যাম’ সিনেমার মহরত ও ব্যানার উন্মোচন অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

কাদের বলেন, ‘কারো নির্দেশনায় এ হামলা হয়নি। এটা একটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা। যারা এ ধরনের ঘটনা ঘটিয়েছে তারা ছাত্রলীগ নামধারী দুর্বৃত্ত। ছাত্রলীগের নাম ব্যবহার করে এ ধরণের অপকর্ম অনেকেই করে। যারা এ ধরনের ঘটনা ঘটায় তারা অনুপ্রবেশকারী। মাহমুদুর রহমানের ওপর হামলায় জড়িতদের বিচার হওয়া উচিত। তাদের খুঁজে বের করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

কাদের বলেন, ‘রাজনীতিতে ভিন্ন মতের জন্য আওয়ামী লীগ কারো ওপর শারীরিক হামলা অতীতেও করেনি, আগামীতেও করবে না। কুষ্টিয়ার ঘটনায় যারাই জড়িত খুঁজে বের করার জন্য পুলিশের আইজিপি’র সঙ্গে কথা বলেছি, ব্যবস্থা নিতে বলেছি।’

রাজশাহীতে ককটেল হামলা নিয়ে বিএনপির দুই নেতার ফোনালাপ ফাঁসের বিষয়ে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘বিএনপি অশুভ তৎপরতায় লিপ্ত। এটিই তাদের রাজনৈতিক নীতি।’

বিএনপি অপরাধ করে স্বীকার করে না মন্তব্য করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘সিলেটে নৌকার প্রতিপক্ষ ধানের শীষ। সিলেটে কামরানের নির্বাচনী অফিসে হামলা-ভাঙচুর-অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটলো। তাহলে কে সেখানে আগুন দিলো?’

এ বিষয়ে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর কী প্রতিক্রিয়া দেন তা শোনার অপেক্ষায় থাকবেন বলেও সাংবাদিকদের জানান আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক।

বিকেলে ইসিতে যাচ্ছে বিএনপি প্রতিনিধি দল

প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নুরুল হুদার সঙ্গে দেখা করতে নির্বাচন কমিশনে যাচ্ছে বিএনপির ৩ সদস্যের একটি প্রতিনিধিদল। সোমবার (২৩ জুলাই) বিকালে এই সাক্ষাৎ অনুষ্ঠিত হবে।

দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আব্দুল মঈন খানের নেতৃত্বে তিন সদস্যের প্রতিনিধি দলটি বিকাল তিনটার দিকে ইসিতে যাবে। প্রতিনিধি দলের অপর দুই সদস্য হলেন- বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আমান উল্লাহ আমান ও সাংগঠনিক সম্পাদক (ময়মনসিংহ বিভাগ) ইমরান সালেহ প্রিন্স।

বিএনপির মিডিয়া উইং কর্মকর্তা শায়রুল কবির এ তথ্য জানান।

সূত্র জানায়, আগামী ৩০ জুলাই বরিশাল, সিলেট ও রাজশাহী সিটি করপোরেশন নির্বাচনের সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে ইসির সঙ্গে আলোচনা করবে প্রতিনিধি দলটি।

দিল্লিতে ব্যস্ত এরশাদ, বলছেন কৌশলী হবে জাপা

ভারত সরকারের আমন্ত্রণে দিল্লি গিয়ে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন সাবেক রাষ্ট্রপতি ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদ। এরইমধ্যে ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিংয়ের সঙ্গে বৈঠকও করেছেন তিনি। বৈঠকে তিনি বলেছেন, জাতীয় নির্বাচন নিয়ে জাতীয় পার্টি কৌশলী হবে।

জাতীয় পার্টি সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। গতকাল রোববার (২২ জুলাই) এরশাদের নেতৃত্বে ৫ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল ভারত সফরে যায়।

এরশাদের এক সফরসঙ্গী টেলিফোনে সারাবাংলাকে জানান, হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদ রোববার (২২ জুলাই) বিকেল ৪টায় ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিংয়ের বাসভবনে গিয়ে বৈঠক করেছেন। সেখানে বর্তমান বাংলাদেশের রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা করেন এরশাদ।

ওই সফরসঙ্গী জানান, আগামী নির্বাচনে বিএনপি এবং আওয়ামী লীগের কাছে জাতীয় পার্টি খুবই গুরুত্বপূর্ণ উল্লেখ করে এরশাদ সেখানে বলেছেন, ‘বিএনপি নির্বাচনে অংশগ্রহণ করলে জাতীয় পার্টি তার নির্বাচনী কৌশল পরিবর্তন করবে। আর না হয় জাতীয় পার্টি ৩০০ আসনে প্রার্থী দিয়ে নির্বাচনে জয়ী হওয়ার জন্য বিভিন্ন কৌশল অবলম্বন করবে।’

বৈঠকে এরশাদ আরও জানান, আগামী নির্বাচনে বিএনপি অংশগ্রহণ করলে আওয়ামী লীগ সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জন করতে পারবে না। এমনকি বিএনপিও এককভাবে সংখ্যাগরিষ্ঠ আসনে জিতবে না। জাতীয় পার্টির আসন বাড়বে। এতে সরকার গঠনের সময়ও জাতীয় পার্টি ভূমিকা রাখবে। সেক্ষেত্রে জাতীয় পার্টি কৌশলী হবে।

এরশাদ সংশ্লিষ্ট ওই নেতা জানান, প্রায় ১ ঘণ্টা আলোচনা করেন দুই নেতা। তাদের আলোচনায় আওয়ামী লীগের বর্তমান পরিস্থিতি বিষয়টিও উঠে আসে।

সফররত ওই নেতা জানান, ভারতের রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সফররত সাবেক রাষ্ট্রপতি পার্টি প্রধান এরশাদের বৈঠক হওয়ার কথা রয়েছে।

ফারুকও কারাগার থেকে পরীক্ষা দেবেন

কোটা সংস্কার আন্দোলনের নেতা এবং সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক ফারুক হোসেনকে কারাগার থেকে পরীক্ষায় অংশগ্রহণের বিষয়ে ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

আইনজীবী জাহিদুর রহমানের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে সোমবার ঢাকা মহানগর হাকিম গোলাম নবী এ নির্দেশ দেন।

জাহিদুর রহমানকে বলেন, গেলো ৪ জুলাই ফারুককে গ্রেফতার করে পুলিশ। ২৬ জুলাই থেকে ১১ আগস্ট তার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মাস্টার্স অব ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্টের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। আদালতের কাছে পরীক্ষার অনুমতি চাইলে আদালত তা মঞ্জুর করেছেন।

এর আগে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শাখার যুগ্ম আহ্বায়ক এ পি এম সুহেলকেও কারাগার থেকে পরীক্ষায় অংশগ্রহণের বিষয়ে ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দেন আদালত।

গেলো ৮ এপ্রিল কোটা সংস্কার আন্দোলন চলাকালে বেশ কিছু ঘটনায় শাহবাগ থানায় ১০ এপ্রিল চারটি মামলা করা হয়।

এর মধ্যে পুলিশ বাদী হয়ে তিনটি মামলা করে। আর ভিসির বাড়ি ভাঙচুরের ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনিয়র সিকিউরিটি অফিসার এস এম কামরুল আহসান বাদী হয়ে আরও একটি মামলা করেন।

তবে চার মামলায় আসামিদের নাম ও সংখ্যা উল্লেখ করা হয়নি।

‘লাল ফিতার দৌরাত্ম্য যেন না থাকে: প্রধানমন্ত্রী’

মানুষের সেবায় লাল ফিতার দৌরাত্ম্য যেন না থাকে। জনগণ যাতে দুর্ভোগে না পড়েন। অহেতুক কোনও প্রকল্পও নেওয়ার দরকার নেই। বললেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সোমবার জাতীয় ‘পাবলিক সার্ভিস দিবস উদযাপন ও জনপ্রশাসন পদক-২০১৮’ প্রদান অনুষ্ঠানে ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে এসব কথা বলেন তিনি।

শেখ হাসিনা বলেন, সরকারি কর্মকর্তারা উচ্চতর ডিগ্রী অর্জন করবেন তবে সেটা শুধু নিজের জন্য নয়, দেশের মানুষের জন্য। দেশের কল্যাণে সেই ডিগ্রি কাজে লাগাতে হবে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের দেশে সিভিল সার্ভিস কর্মকর্তাদের উচ্চতর ডিগ্রির প্রবণতা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। আমরা তাদের দেশের ভেতরে-বাইরে পাঠিয়ে প্রশিক্ষণের উপর বিশেষ গুরুত্ব দিচ্ছি।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুও জনপ্রশাসন কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা কেরেছিলেন, সেই ধারাবাহিকতায় আমরাও করছি।

শেখ হাসিনা বলেন, আমরা রাজধানীবাসীর দুর্ভোগ কমাতে মেট্রোরেল করছি। আমাদের সক্ষমতাও বেড়েছে। মানুষষের যেন সার্বিক উন্নয়ন হয়, জাতির পিতা সেই কথাই বলেছিলেন। তার রাজনীতি ছিল মানুষের উন্নয়ন করা। সেই লক্ষে তিনি স্বাধীনতা অর্জন করেন।

ধর্মীয় উস্কানির অভিযোগে খালেদাকে গ্রেপ্তারে আবেদন

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানার আবেদন করা হয়েছে। ধর্মীয় উস্কানি ও বিভিন্ন শ্রেণির মধ্যে বিরোধ সৃষ্টির অভিযোগের মামলায় এ আবেদন করা হয়।

সোমবার ঢাকা মহানগর হাকিম আবু সাঈদের আদালতে এ আবেদনটি করেন মামলার বাদী জননেত্রী পরিষদের সভাপতি এ বি সিদ্দিকী। তাকে আইনগত সহযোগিতা করেন আইনজীবী আবুল কালাম আজাদ ও রওশন আরা সিকদার ডেইজি।

আইনজীবী রওশন আরা সিকদার ডেইজিকে বলেন, খালেদার বিরুদ্ধে প্রতিবেদন জমা দিয়েছেন তদন্তকারী কর্মকর্তা। আইনুযায়ী আমরা খালেদার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানার আবেদন করেছি। এ বিষয়ে কোনো আদেশ এখনও দেয়নি আদালত।

এর আগে ৩০ জুন ঘটনার সত্যতা পাওয়া গেছে বলে খালেদার বিরুদ্ধে প্রতিবেদন দাখিল করেন শাহবাগ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) জাফর আলী বিশ্বাস।

মামলার বিবরণ থেকে জানা যায়, ২০১৪ সালের ১৪ অক্টোবর রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে হিন্দু সম্প্রদায়ের শুভ বিজয়ার অনুষ্ঠানে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময়কালে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য দেন খালেদা জিয়া। বক্তৃতার একপর্যায়ে খালেদা জিয়া বলেন, আওয়ামী লীগ ধর্মনিরপেক্ষতার মুখোশ পরে আছে। আসলে দলটি ধর্মহীনতায় বিশ্বাসী।

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ সব ধরনের মানুষের ওপর আঘাত করে। আর লোক দেখানো ধর্মনিরপেক্ষতার কথা বলে ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান দখল করে নেয়। ধর্মনিরপেক্ষতার মুখোশ পরা এ জবর-দখলকারী সরকারের হাতে কোনো ধর্মের মানুষই নিরাপদ নয়।

এ বক্তব্যের জের ধরে দণ্ডবিধির ১৫৩ (ক) ও ২৯৫ (ক) ধারায় খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে ঢাকা মহানগর হাকিম মোস্তাফিজুর রহমানের আদালতে ২০১৪ সালের ২১ অক্টোবর নালিশি মামলাটি করেন জননেত্রী পরিষদের সভাপতি এ বি সিদ্দিকী।

সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের অনুমতি নিয়ে ২০১৪ সালের ২১ অক্টোবর আদালত মামলাটি শাহবাগ থানার একজন পরিদর্শক পদমর্যাদার কর্মকর্তাকে তদন্তের নির্দেশ
দেন।

মাহমুদুর রহমানকে হামলা করেছে ছাত্রলীগের সন্ত্রাসীরা: ফখরুল

পুলিশের সহায়তায় আদালত প্রাঙ্গণে মাহমুদুর রহমানের ওপর ছাত্রলীগের সন্ত্রাসীরা হামলা চালিয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

আজ রোববার কুষ্টিয়ার আদালত প্রাঙ্গণে আমার দেশ পত্রিকার সম্পাদক মাহমুদুর রহমানের ওপর হামলার ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়ে সন্ধ্যায় দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, মাহমুদুর রহমান মামলায় হাজিরা দিতে কুষ্টিয়ায় গিয়েছিলেন। তিনি জামিনও পান। এ সময় আদালত প্রাঙ্গণে ছাত্রলীগের সন্ত্রাসীরা অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে অবস্থান নেয়। মাহমুদুর রহমান হামলার কথা বুঝতে পেরে কোর্টে অবস্থান নেন। বিচারকের হস্তক্ষেপ চান মাহমুদুর রহমান। বিচারক আদালতে দায়িত্বরত ওসিকে ব্যবস্থা নিতে বলেন। পরে কোর্টের ওসির কথায় তিনি আদালত থেকে বের হয়ে আসেন। কোর্টের ওসি জোর করে মাহমুদুর রহমানকে বের করে সন্ত্রাসীদের হাতে তুলে দেন।

তিনি আরও বলেন, মাহমুদুর রহমান হামলার পর সেখানে চিকিৎসা নেয়ার সুযোগও পাননি। কিন্তু সরকারের উচিত ছিল তাকে পুলিশের সহযোগিতায় চিকিৎসা দিয়ে ঢাকায় আসার ব্যবস্থা করে দেয়া। সরকার সেটি করেনি।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, আমরা দ্রুত হামলাকারীদের চিহ্নিত করে বিচার বিভাগীয় তদন্ত করার দাবি জানাচ্ছি। হামলার মাধ্যমে আবারও প্রমাণ হলো দেশের প্রতিটি সেক্টর সরকার নিজেদের নিয়ন্ত্রণে নিয়েছে। একমাত্র আন্দোলনের মাধ্যমে এ সরকারের পতন ঘটিয়ে গণতন্ত্রকে ফিরিয়ে আনতে হবে। না হলে শুধু মাহমুদুর রহমান নয়, কোনও নাগরিক আদালত বা কোথাও নিরাপদে থাকবে না।

এসময় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ, ড. আব্দুল মঈন খান, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী, সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীসহ অনেকে উপস্থিত ছিলেন।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও প্রধানমন্ত্রীর ভাগনি টিউলিপ সিদ্দিক সম্পর্কে মানহানিকর বক্তব্য দেয়ার অভিযোগে মাহমুদুর রহমানের বিরুদ্ধে কুষ্টিয়ায় মামলা হয়। মামলায় জামিন নিতে কুষ্টিয়া আদালতে তিনি গিয়েছিলেন। সে মামলায় আদালত আজ তাকে জামিন দিয়েছেন।

কোটা সংস্কার: অবস্থান ধর্মঘটে জাবি শিক্ষার্থীরা

কোটা সংস্কার বিষয়ে চার দফা দাবিতে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন করে অবস্থান ধর্মঘট পালন করেছেন সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

রোববার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে বই, খাতা ও কলম রেখে এ অবস্থান ধর্মঘট কর্মসূচি পালন করেন শিক্ষার্থীরা।শিক্ষার্থীদের চার দফা দাবি হচ্ছে- অবিলম্বে কোটা সংস্কার করে প্রজ্ঞাপন জারি করা, কোটা সংষ্কার আন্দোলনে গ্রেপ্তারকৃতদের মুক্তি, সন্ত্রাসী হামলার বিচার ও ধর্ষণের হুমকিদাতাদের গ্রেপ্তার করা।

অবিলম্বে এসব দাবি বাস্তবায়ন না হলে ক্যাম্পাসে কঠোর আন্দোলনের হুশিয়ারি দেন তারা।এছাড়া কোটা সংস্কার আন্দোলনে শিক্ষার্থীদের উপর হামলার বিচারের দাবিতে ক্যাম্পাসে পূর্ণদিবস কর্মসূচি পালন করছেন বিএনপিপন্থী শিক্ষকরা।

কোটা আন্দোলনে ‘ষড়যন্ত্রের গন্ধ’ পেয়েছেন ঢাবির আওয়ামীপন্থী শিক্ষকরা

কোটা আন্দোলনে ষড়যন্ত্রের গন্ধ পাওয়া গেছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়কে অস্থিতিশীল করে একটি বিশেষ মহল ফায়দা লুটতে এই ষড়যন্ত্র করেছিল।

বললেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক মাকসুদ কামাল।

আজ রোববার বেলা ১১ টার দিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কলা ভবনের প্রধান ফটকের সামনে ‘সচেতক শিক্ষক সমাজ’ এর ব্যানারে আয়োজিত মানববন্ধন থেকে এই দাবি করেন আওয়ামীপন্থী এই শিক্ষক।

মাকসুদ কামাল বলেন, ১৯ তারিখে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বট তলায় দাঁড়িয়ে আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের শিক্ষক আকমল হোসেন অপ্রাসঙ্গিক ভাবে বলেছিলেন শেখ হাসিনা কি মুক্তিযুদ্ধ করেছেন? শেখ মুজিব কি মুক্তিযুদ্ধ করেছেন? যে নেতার জন্ম না হলে বাংলাদেশ স্বাধীন হত না, যে নেতা সাংবিধানিক ভাবে মুক্তিযুদ্ধের সর্বাধিনায়ক। সেই নেতার বিরুদ্ধে যখন বলা হয় তখন বুঝতে হবে এরা কারা।

তিনি আরো বলেন, কোনো শিক্ষার্থী যদি অন্যায়ভাবে কারাগারে থাকে, তাকে আর একটি দিনও যেন কারাগারে না থাকতে হয়। পুলিশ প্রশাসনের সাথে আলোচনা করে তাদের ছাড়িয়ে আনার ব্যবস্থা করুন। এই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ বজায় রাখতে যে ক্রিয়াশীল ছাত্র সংগঠনগুলো আছে তাদের সাথে আলাপ আলোচনা করুন।

তিনি বলেন, যারা ছাত্রদের উস্কে দিচ্ছে ক্লাসে না যাওয়ার জন্য, ছাত্রদেরকে দিয়ে অন্য শিক্ষকদের নিপীড়ন করছে। সেই শিক্ষকদের আহ্বান করি আপনারাও আসুন আমরা আলোচনা করে মর্যাদাশালী এই বিশ্ববিদ্যালয়কে মর্যাদার জায়গায় রাখি। আপনারা ছাত্রদের জীবন নষ্ট করবেন না। তাদের প্রতি যদি আপনাদের ভালবাসা থাকে তাহলে তাদের ক্লাসে ফিরিয়ে আনুন।
সমাজবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক আ ক ম জামাল বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার পরিবেশ নষ্ট হতে দেয়া হবে না। আমাদের কিছু শিক্ষক বিভ্রান্তকর তথ্য প্রচার করছেন। তাদের অনেকে মুক্তিযুদ্ধকে কটাক্ষ করেছেন। এসব কর্মকাণ্ড সহ্য করা হবে না। আমাদের ক্যাম্পাস নিয়ে ষড়যন্ত্র চলছে।

তিনি বলেন, সুপ্রিম কোর্টের কয়েকজন আইনজীবী আমাদের মাননীয় উপাচার্যের পদত্যাগ চেয়েছেন। আমরা তাদের বলতে চাই আপনারা আদালতে থাকুন। আমাদের বিশ্ববিদ্যালয় নিয়ে নাক গলাবেন না। আমরা বর্তমান উপাচার্যের অধীনে ভাল আছি। তার নেতৃত্বে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এগিয়ে যাচ্ছে।

বিজয় একাত্তর হলের প্রভোস্ট শফিউল আলম ভুঁইয়া বলেন, কোটা আন্দোলনকে সমর্থন করি। সরকারও তাদের দাবি মেনে নিয়েছে। তাহলে কেন এই আন্দোলন হচ্ছে? আমার মনে হয় কোন তৃতীয় শক্তি এই আন্দোলনে উস্কানি দিচ্ছে। তারা ঘোলা পানিতে মাছ শিকার করতে চায়।
সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন সাদেকা হালিম বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সবাই মিলে একটি পরিবার।

পরিবারের কোন সমস্যা হলে আমরা তার সমাধান করব। শিক্ষার্থীরা কোটা আন্দোলন করছে। এটি একটি যৌক্তিক আন্দোলন। আমরা এই আন্দোলনকে সমর্থন জানাই। সরকারও তাদের দাবি মেনে নিয়েছে। ইতিমধ্যে সরকার একটি কমিটি করে দিয়েছে। তারপরও একটি মহল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়কে অস্থিতিশীল করার চেষ্টা করছে।

জনপ্রিয়

গরম খবর